নুরের কথাবার্তা অকৃতজ্ঞতার পরিচায়ক: ঢামেক পরিচালক

নুরের কথাবার্তা অকৃতজ্ঞতার পরিচায়ক: ঢামেক পরিচালক
  © সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরের কথাবার্তাকে দুঃখজনক এবং অকৃতজ্ঞতার পরিচায়ক বলে মনে করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন।

নুরের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিচালক বলেন, নুরের এ ধরণের কথাবার্তা দুঃখজনক এবং অকৃতজ্ঞতার পরিচায়ক। তার অভিযোগ ভিত্তিহীন। শারীরিক সুস্থতা আছে দেখেই তাকে ছাড়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নয় দিন পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে গণমাধ্যমে দেয়া ভিপি নুরে বক্তব্যের পর এ মন্তব্য করেন ঢামেক পরিচালক। মঙ্গলবার চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র পান ডাকসু ভিপি নুর। কিন্তু পুরোপুরি সেরে ওঠার আগেই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

তিনি বলেছেন, গ্রেফতারের জন্য তড়িঘড়ি করে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়েছে তাকে। নুর বলেন, ‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাঁচাতে চেয়েছে না মারতে চেয়েছে, তা নিয়ে সন্দিহান। কারণ শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হয়ে অবনতি হচ্ছে।’

গতকাল মঙ্গলবার সকালে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন তিনি। ঢাকা মেডিকেল ছাড়ার পর মগবাজারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি।

ঢামেক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে নুর বলেছেন, ‘আমি এখনও সুস্থ নই। হাসপাতালে ভর্তির তিন দিন পর থেকে বেশি অসুস্থ বোধ করছি। আমি এখনও ঝাপসা দেখি।’ যারা হামলার সঙ্গে জড়িত, তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে বলে দাবি জানান তিনি।

তাকে হত্যার ষড়যন্ত্র হচ্ছে দাবি করে ডাকসু ভিপি বলেন, প্রথম তিন দিনের পর শরীর আরও খারাপ হয়। মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র হতে পারে। এসব সরকারের ইশারাতেই হয়েছে বলে মনে করেন তিনি। এছাড়া ছাত্রলীগকে আড়াল করতে পুলিশ তাদের মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ নুরের।

গত ২২ ডিসেম্বর ডাকসু ভবনের মূল গেট বন্ধ করে তাদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। এসময় ভিপির কক্ষের লাইট বন্ধ করে বাঁশ ও রড দিয়ে নুর ও তার সহযোগীদের বেধড়ক পেটায় তারা। ভবনের ছাদ থেকেও একজনকে ফেলে দেয়া হয়। ওই হামলায় নুরসহ অন্তত ৩০ জন আহত হন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ