বাংলাদেশের অগ্রগতি আমেরিকার উন্নয়নকেও হার মানিয়েছে: নাহিদ

সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন সারা বিশ্বের এক বিস্ময়। একটি অনুন্নত দেশ হিসেবে অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাংলাদেশের অগ্রগতি আমেরিকার উন্নয়নকেও হার মানিয়েছে। একটি অতি উন্নত দেশ হিসেবে গত বিশ বছরে আমেরিকার উন্নয়নের তুলনায় অনেক বেশী এগিয়েছে বাংলাদেশ। বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে মাথাপিছু ইনকাম ছিল ৫০ ডলার। এখন তা দুই হাজার ডলারে উন্নীত হয়েছে। দলীয় শিক্ষানীতি নয়, একটি জাতীয় শিক্ষানীতির আওতায় সার্বজনীন মানবিক একটি শিক্ষানীতি প্রণয়ন করেছি। যা দেশে বিদেশে প্রশসংসিত হয়েছে।

নিউইয়র্কে বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জবাসীর উদ্যোগে ১৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় কুইন্সে দেশী সিনিয়র সেন্টারের মিলনায়তনে নুরুল ইসলাম নাহিদের সম্মানে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি অহিদুর রহমান মুক্তা। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দীন মহি।

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরাজিত শক্তি বিএনপি-জামায়াত দেশের উন্নয়নের চাকাকে পেছনে নিয়ে যাওয়ার চক্রান্ত করেছে। এরই অংশ হিসেবে তারা স্বপরিবারে হত্যা করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ১৯৯৬ সালে প্রথম আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। এরপর চক্রান্তের নির্বাচনের মাধ্যমে বিএনপি জামায়াত আবারো ক্ষমতায় এসে দেশে দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদের জন্ম দিয়েছিল। পরবর্তীতে ২০০৯ সালে পুনরায় ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ দেশকে উন্নয়নের এক মহা পরিকল্পনা দিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ এলডিসি থেকে বেরিয়ে মাঝারি শ্রেণীর দেশের তালিকাতে নিজের অবস্থান নিয়েছে। নারী শিক্ষা, শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার জাতিসংঘের মানেণ্ডে উন্নীত করেছে বাংলাদেশ।

নিজের অবদানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সিলেট এক সময় শিক্ষায় অনেক পিছিয়ে পড়েছিলো। এই অবস্থা এখন অনেকটা কাটিয়ে আনা হয়েছে। আগামীতে সিলেট তার হৃত গৌরব ফিরে পাবে বলে আমরা আশা করছি।

নিজ নির্বাচনী এলাকা প্রসঙ্গে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, সিলেটের গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজারে শিক্ষাক্ষেত্রে এক বৈপ্লবিক উন্নয়ন সাধন করা হয়েছে। এটা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন তিনি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে বিশ্বের সামনে একটি রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চান। এরই অংশ হিসেবে এখন তিনি দুর্নীতি বিরোধী অভিযান শুরু করেছেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতির সভাপতি মোস্তফা কামাল এবং গোলাপগঞ্জ উপজেলাবাসীর পক্ষে হেলিম আহমদ।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন আইরীন পারভীন, হাজী আব্দুর রহমান, আব্দুল কুদ্দুস টিটো, কামরুল হক, কমর উদ্দীন, আব্দুল হাসিব, কবির আহমদ চৌধুরী, হেলাল আহমদ, সফর উদ্দীন লোদি, সাব্বির আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শামীম আহমদ, ওয়াহিদ পারভেজ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ