বাস-সিএনজি সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীসহ নিহত ২

নরসিংদীর শিবপুরে যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীসহ ২ জন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও ৩ জন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শিবপুর-মনোহরদী আঞ্চলিক সড়কের পঁচারবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত দুজন হলেন—শিবপুরের বৈলাব গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে রুপন মিয়া (৩৫) ও শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গার্লস হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক গাজী হারুন অর রশিদের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া মেয়ে লামিয়া আক্তার (১৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সিএনজিটি শিবপুরের নোয়াদিয়া এলাকা থেকে যাত্রী নিয়ে শিবপুর সদরে যাচ্ছিল। রাত সাড়ে ৮টার দিকে শিবপুর-মনোহরদী আঞ্চলিক সড়কের পঁচারবাড়ি এলাকায় ঢাকাগামী রয়েল পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাসের সঙ্গে সিএনজিটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই এর যাত্রী রুপন মিয়া নিহত হন। এ সময় সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালকসহ মোট চারজন গুরুতর আহত হন। আহতদের তাৎক্ষণিকভাবে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখানে মারা যান বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী লামিয়া আক্তার। দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন নিহত লামিয়া আক্তারের মা আসমা উল হুসনা। তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছে। রহিম মিয়া (৩৮) ও মজিবুর রহমান (২৬) নামের অন্য দুই আহত যাত্রীকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

শিবপুর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত দুজনের মৃত্যুর খবর আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি। আহত অন্য যাত্রীরাও আশঙ্কামুক্ত নন। এই ঘটনায় বাসের চালক পলাতক রয়েছে। স্থানীয় জনতা উত্তেজিত হয়ে রয়েল পরিবহনের কাউন্টারে ভাঙচুর করেছে। ওই পরিবহনের বাস চলাচল এখন বন্ধ আছে।’


মন্তব্য