নদীতে নিখোঁজ কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

রাফিদুল ইসলাম রাফি  © সংগৃহীত

চাঁদপুরের নদীতে নিখোঁজ হওয়া কলেজছাত্র রাফিদুল ইসলাম রাফিকে পাওয়া গেছে। নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় চাঁদপুর শহরের তিন নদীর মোহনার অদূরে জেগে ওঠা চরের পাশেই ভেসে ওঠে রাফির মরদেহ।

এসময় রাফির বড় চাচা মহিবুল ইসলাম, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড মডেল কলেজের অধ্যক্ষ ড. একেএম এমদাদুল হকের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান।

এর আগে বুধবার দুপুরে ওই চরের পাশে নদীতে সাঁতার কাটতে নামেন রাফিদুল ইসলামসহ তার ৮ বন্ধু। কিন্তু এদের মধ্য থেকে নদীতে সলিল সমাধি ঘটে এই কলেজছাত্রের। দুর্ঘটনার পর থেকে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে ফায়ারসার্ভিস, নৌবাহিনী, নৌপুলিশসহ বেসরকারি ডুবুরিদল নিখোঁজের সন্ধানে অভিযান শুরু করে।

রাফিদুল ইসলাম কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড মডেল কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র। তার বাবার নাম রফিকুল ইসলাম। তিনি বনবিভাগের কর্মকর্তা। কুমিল্লা শহরের টমছম ব্রিজ এলাকার পাশে পোস্ট অফিস কলোনিতে রাফিদুলের বাসা। এক ভাই, একবোনের মধ্যে সে ছিল ছোট।

কলেজের অধ্যক্ষ ড. একেএম এমদাদুল হক জানান, ছাত্র হিসেবে বেশ মেধাবী ছিল রাফি। এছাড়া রাফি রোভার স্কাউটসসহ নানা সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিল। তার এভাবে চলে যাওয়া আমাদের বেশ কষ্ট দিয়েছে বলে আক্ষেপ করেন তিনি।

এ বিষয়ে চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, পরিবার ও কলেজ কর্তৃপক্ষের লিখিত অনুরোধের প্রেক্ষিতে সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহটি হস্তান্তর করা হয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ