৩০ টাকায় করোনা চিকিৎসা: কিছু জরুরি আলোচনা

ডা. মো. সাইদুজ্জামান উপল  © ফেসবুক

৩০ টাকায় করোনা চিকিৎসা নিয়ে কিছু আলোচনা অতীব জরুরি কথা। আলোচ্য সংবাদ, Bangladesh Medical College Hospital এর রেস্পিরেটরি মেডিসিনের প্রফেসর তারিক আলম স্যার ও উনার টিম ৬০ জন করোনা পজিটিভ ম রোগীকে Ivermectin+ Doxycycline এর কম্বিনেশন প্রয়োগ করে সাফল্য পেয়েছে।

তাহলে ওষুধ দুইটা হলো-
১। Ivermectin: যা এন্টি প্যারাসাইটিক অর্থাত উকুন স্ক্যাবিসের ট্রিটমেনন্টে ব্যবহার করা হয়।
২। Doxycycline : যেটা একটি এন্টিবায়োটিক, ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমনে ব্যবহার করা হয়।

করোনা হলো ভাইরাস, সেখানে দেওয়া হয়েছে এন্টি প্যারাসাইটিক ও এন্টিবায়োটিক, অথচ দেওয়া এন্টি ভাইরাল।

তাহলে, আদৌ কি কোন রোল আছে এই দুই ওষুধের?

তার আগে কিছু তথ্য জেনে নেই-

* ২৫-৫০% রোগী টেরও পাবে না যে তার শরীরে করোনা ভাইরাস আছে। অর্থাত Asymptomatic case.
* ৪০-৮০% রোগীর Mild Symptom থাকতে পারে অর্থাত জ্বর, সর্দি, কাশি,গলা ব্যথা,মাথা ব্যথা থাকতে পারে
* ১৫% রোগীর Severe Condition Develop করতে পারে আর ৫% রোগী ক্রিটিক্যাল কন্ডিশনে যেতে পারেন।
* Worldometer এর তথ্য অনুযায়ী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬.৫৭% মানুষের।
বর্তমানে ২৬ লক্ষ একটিভ কেসের মধ্যে ২% ক্রিটিক্যালি অসুস্থ, ৯৮% এরই মাইল্ড সিম্পটম।

এবার আসি Ivermectin এর প্রসঙ্গে-
In Vitro সেল কালচারের মধ্যে Ivermectin ব্যবহার করে দেখা গেছে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে করোনার রেপ্লিকেশন ৫ হাজার গুন কমে গেছে। খুশির খবর, কোন সন্দেহ নেই।

তাহলে চলেন সবাই Ivermectin খাই?
জ্বী না, গবেষণায় যে পরিমান Ivermectin এর কনসেন্ট্রেশন ব্যবহার করা হয়েছে তা বর্তমান ওরাল ডোজের চেয়ে ৩৫ গুন বেশি। এতে Ivermectin এর ব্যবহারে করোনা মরবে কিনা জানি না তবে ওষুধের টক্সিসিটিতে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার এমনিকি মারা যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে।

Dr. Steven Solomon, Director of FDA’s Center for Veterinary Medicine, সতর্ক করে দিয়েছেন করোনা চিকিৎসায় Ivermectin এর ব্যবহার প্রসঙ্গে। https://tinyurl.com/vgn7qbc

Doxycycline: এইটা এন্টিব্যাকটেরিয়াল ওষুধ। Chronic Dry Cough এর চিকিৎসাতে আমি নিজেই প্রচুর প্রেসক্রাইব করি, রেজাল্টও বেশ ভালোই। এইটা করোনাতে Secondary Bacterial infections prevent করবে।

তাহলে সামারাইজ করলে দেখা যাচ্ছে,

১। বেশিরভাগ করোনা আক্রান্ত রোগীর কোন চিকিৎসারই প্রয়োজন নেই।
২। যাদের মাইল্ড সিম্পটম আছে তাদের জন্য Azithromycine/Doxycycline+ Fexofenadine/loratadine +Cough Syrup + Vit. C যথেষ্ট।
৩। Severe Condition/ Respiratory Distress এ থাকা রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি করে হাই ফ্লো অক্সিজেন,ভেন্টিলেশন,নিউট্রিশনাল সাপোর্ট প্রয়োজন।
৪। মোটা দাগে সিম্পল কথা, Ivermectin এর বর্তমান ডোজিং শিডিউলের কোন উপকারিতা নেই করোনা চিকিৎসায়।
৫। বরং ডক্সিসাইক্লিন ঐ ৬০ জন রোগীর সিম্পটম রিলিফে সাহায্য করেছে।
৬। ৪ দিনের জায়গায় ৫ দিনে হলেও তাদের এমনিতেই করোনা নেগেটিভ আসতো।

আর সর্বোপরি ভাইরাল লোড বেশি থাকলে Antiviral Favipiravir, ventilation সাপোর্ট কোন কিছুই কোন কাজে আসবে না।

লেখক: চিকিৎসক, এমএস-রেসিডেন্ট (জেনারেল সার্জারি) সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ