আইসিসি-পাপনদের ষড়যন্ত্রের শিকার সাকিব!

  © টিডিসি ফটো

আগামীতে বাংলাদেশে একশত পদ্মাসেতু তৈরি করা সম্ভব, কিন্তু একজন সাকিব আল হাসান তৈরি করা সম্ভব নয়। সম্প্রতি বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে শুরু করে ক্রীড়াঙ্গন সবখানেই আলোচনার ঝড় বইছে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে।

গেল বছর দুয়েক আগে সাকিব আল হাসানকে ভারতীয় এক জুয়ারি ম্যাচফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু সাকিব সেই প্রস্তাব গ্রহণ তো দুরের কথা তা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছিল। কিন্তু তার দোষ ছিল একটাই, সে এই ঘটনাটি আইসিসিকে তখন জানান নাই, যদিও এই পুরো বিষয়টি বিসিবি এবং পাপন সাহেব পুরোপুরি জানতেন।।

সাকিব একজন খেলোয়াড়, সে জেনে হোক বা না জেনেই হোক আইসিসিকে জানান নাই বিষয়টা। কিন্তু পাপন সাহেব তো তখনি জানাতে পারতেন যেহেতু সে সবই জানতেন অথবা সাকিবকে বলতেন আইসিসিকে জানানোর জন্যে। কিন্তু তিনি তা করেননি। কারণ সুযোগ মতো সাকিবকে সাইজ করার জন্যে।

কিন্তু এখন দুবছর অতিবাহিত হওয়ার পরে ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের’ দুর্নীতি বিরোধী ইউনিট নাকি সাকিবের নামে ম্যাচফিক্সিংয়ের প্রমাণ পেয়েছেন। এসব কোনভাবেই ম্যাচফিক্সিং নয়, জাস্ট সে অফারেরে বিষয়টি আইসিসিকে জানান নাই। তারই ফলশ্রুতিতে সাকিবকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দু (১+১=২) বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

আমরা যদি ধরেও নেই সাকিব অপরাধ করেছেন (এটি অপরাধ নয়, একটি ছোট ভুল মাত্র) তারপরও তার অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী সে এত বড় শাস্তি কখনোই পেতে পারেন না।

আমরা মনেকরি ‘এই রায়ে সাকিবের সাথে চরম অন্যায় করেছে আইসিসি। আর এই নিষেধাজ্ঞার পেছনে কলকাঠি নেড়েছেন পাপন সাহেব এবং আইসিসি-বিসিবির যোগসাজশে বাংলাদেশের ক্রিকেট নক্ষত্র সাকিবকে ২ বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে দূরে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডেরও হাত থাকতে পারে।

এখানে উল্লেখ্য যে সম্প্রতি খেলোয়াড়দের বেতন ভাতা বৃদ্ধির জন্যে ক্রিকেটাররা আন্দোলন করেছিলেন। আর সেই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। মূলত তখন থেকেই সাকিবের প্রতি রুষ্ট পাপন সাহেব। পাপন সাহেব সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন কখন সাকিবকে বাগে পাওয়া যায়।

পাপন সাহেব একজন পাক্কা জুয়ারি এবং ক্যাসিনো ব্যবসায়ী, যা আজকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এরকম একজন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী কি করে বিসিবির সভাপতির পদে এখনো থাকে? আমরা দেশবাসী দ্রুত পাপন নামক পাপাত্মার বহিষ্কার চাই এবং সেই সাথে সাকিব আল হাসানকে আমাদের মাঝে ফেরত চাই।

লেখক: যুগ্ম-আহবায়ক, ছাত্র অধিকার পরিষদ


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ