পাবলিক টয়লেট পরিষ্কার করা যায়, পাবলিককে নয়!

শহরে আজ কিছু সময় আটকে ছিলাম জ্যামে। রিকশা জ্যাম। রাস্তার এপাশ থেকে ওপাশে যাবো। যেতে পারছিলাম না। মফস্বল শহরে জ্যামের কারণ হচ্ছে — তাড়াহুড়া। রাস্তা সরু, কিন্তু যেতে চায় সবাই আগে। একটা ট্রাফিক পুলিশ চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন। কাজ হচ্ছে না। জ্যাম একটু খসতে না খসতেই কোনো একটা রিকশার চাকা ঢুকে যাচ্ছে। আবারো জ্যাম!

পুলিশ অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেছেন। মা-বাপ তুলে গালি। পাশেই ছিলাম। বললাম, ভাই, এসব কি আপনাদের প্রশিক্ষণে শেখানো হয়? আমার দিকে তাকালেন। সেইরকম তাকানো! আত্মরক্ষার জন্য বললাম, ভাই, শিক্ষক মানুষ; কৌতূহল থেকে জিজ্ঞেস করেছি।

উনি জানতে চাইলেন, আমার পাবলিক টয়লেটের অভিজ্ঞতা আছে কিনা। আস্তে করে বললাম, আছে। এবার পুলিশ সাহেব বলা শুরু করলেন, শুনেন ভাই, পাবলিক টয়লেট সাফ করা যায়। কিন্তু শালার পাবলিকরে সাইজ করা যায় না। আরও বললেন, আমরা তো পুলিশ, আমরা তো খারাপ। পাবলিক যে কতো খারাপ জিনিস !

শেষে বললাম, ভাই, আপনি পুলিশ পাবলিক; আর আমি শিক্ষক পাবলিক। আমরা সবাই পাবলিক। ট্রাফিক পুলিশ একটু হেসে বললেন, তাইলে বুঝেন।

শিক্ষা পাইলাম : পাবলিক টয়লেট পরিস্কার হইবার পারে, কিন্তু পাবলিক পরিস্কার হইবার নহে। দারুণ!

[ফেসবুক থেকে সংগৃহীত]

লেখক: খোন্দকার কাওসার আহমেদ, শিক্ষক, পাবনা গভর্নমেন্ট গার্লস হাই স্কুল।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ