এবার অনিকের বিয়ের প্রমাণ দিলেন শাবনূর!

এবার অনিকের বিয়ের প্রমাণ দিলেন শাবনূর!
  © সংগৃহীত

অনীকের বিয়ের বিষয়ে প্রমাণ দিলেন চিত্রনায়িকা শাবনূর। অনীকের নতুন পাসপোর্টে স্ত্রী হিসেবে ‘আয়েশা আক্তার’ নামের এক মহিলার নাম রয়েছে বলে প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়া থেকে একটি গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারেচরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

শাবনূর বলেন, ‘বিয়ের পর তার অনৈতিক কর্মকান্ড ও অত্যাচার-অবিচারের বিষয়টি জানানোর প্রয়োজন মনে করিনি কাউকে। কারণ এটি একান্তই পারিবারিক বিষয়। যখন পরিস্থিতি সহ্যের বাইরে চলে গেছে তখন তাকে তালাক দিতে বাধ্য হই। এ বিষয়টিও কাউকে জানাইনি। এমনকি আমার আইনজীবীকেও গোপন রাখতে বলেছিলাম।

শেষ পর্যন্ত খবরটি প্রকাশ হওয়ার পরও অনীকের অন্যায় অপরাধের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরিনি। শুধু বলেছি, বনিবনা না হওয়ায় তাকে তালাক দিতে বাধ্য হয়েছি। কিন্তু অনীকই আমাকে মুখ খুলতে বাধ্য করেছে। সে মিডিয়ায় বলেছে, আমি নাকি এক চীনা নাগরিককে বিয়ে করেছি। এছাড়া আরেকজনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে এবং তাকে নিয়ে মালয়েশিয়ায় গিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘আমাকে বিয়ের আগেই সে মৌরি ইসলাম মৌ নামে এক মেয়েকে বিয়ে করেছিল। বিষয়টি আমি জেনে গেলে মৌকে সে ভয়ভীতি দেখিয়ে তালাক দেয়। আমাদের বিয়ের পরও আমার অনুমতি না নিয়ে আয়েশা আক্তার নামে একজনকে সে বিয়ে করে। এটি কী বেআইনি ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ নয়? তারপরও তার বিরুদ্ধে আইনগত কোনো ব্যবস্থা নিইনি।’

সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে সংসার টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার ও সন্তানের প্রতি অবহেলা ও অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে গেলে সহ্য করতে না পেরে তাকে তালাক দিতে বাধ্য হয়েছি। সন্তানের ভরণ-পোষণ দূরে থাক, কখনো দুধ পর্যন্ত কিনে দেয়নি।’

আপাতত তার পাসপোর্টের কাগজ প্রকাশ করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এরপরও যদি সে মাফ না চায় তাহলে নতুন বউকে নিয়ে যে ঘুরে বেড়িয়েছে সে ছবি আছে আমার কাছে, সব ফাঁস করে দেব। অনীকের নতুন পাসপোর্টের কপিও আমার কাছে। সেখানে স্ত্রী হিসেবে আয়েশা আক্তারের নাম। বিয়ে না করলে তার নাম ব্যবহার করল কেন?’


মন্তব্য