পাঁচ ববি শিক্ষার্থীর উদ্ভাবন

করোনা সাহায্য: দাতা ও গ্রহীতাকে খোঁজে দেবে ‘হাত বাড়াও’

করোনা সাহায্য: দাতা ও গ্রহীতাকে খোঁজে দেবে ‘হাত বাড়াও’

দেশে মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে লক্ষ লক্ষ মানুষ। অনাহার-অর্ধাহারে দিন কাটছে অনেকের। এদের অনেকেই চক্ষুলজ্জার ভয়ে যেমন সাহায্য চাইতে পারছেন না, তেমনি অনেক দাতা রয়েছেন তাঁরা কাদেরকে সহায়তা করবেন, কিভাবে পৌঁচ্ছাবেন তা নিয়ে দিধাগ্রস্থ রয়েছেন।

তথ্য, যোগাযোগের এই বাঁধা দূর করতেই বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) শিক্ষার্থীরা তৈরি করেছেন ‘হাত বাড়াও’ নামে একটি অ্যাপ। অ্যাপটি মূলত দাতা এবং গ্রহীতার মধ্যে যোগাযোগের একটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড প্রকৌশল বিভাগের পাঁচ শিক্ষার্থীর একটি দল অ্যাপটি তৈরি করেছেন। তারা হলেন, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী বিপুল মন্ডল, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সরোয়ার হোসাইন এবং ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আহম্মদ সাবির সিদ্দিকী, জান্নাতুল ফেরদৌস রিমা এবং রাজিনুল করিম। তাঁরা সবাই কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী।

অ্যাপ তৈরি দলের সদস্য আহম্মদ সাবির সিদ্দিকী দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমরা অনেকেই আছি যারা দৈনিক আয়ের উপর ভর করে চলতাম। এই সময়ে কাজ থেকে দূরে থাকার কারনে ইনকাম সোর্স বন্ধ হয়ে গিয়েছে। একারণে অনেককেই মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে। অনেকেই সাহায্য চাইতে পারছে না চক্ষুলজ্জ্বার কারণে। আবার কেউ চাইতে পারছে না, সাহায্যের সোর্সের অভাবে। ফলে একটা বড় সংখ্যক মানুষের জীবন বিপন্ন আজ।

আবার আরো অনেকেই আছেন, যারা কিনা সাহায্য করতে চাচ্ছেন, কিন্তু কিভাবে এই মানুষগুলোর কাছে সাহায্য পৌছাবেন, তার উপায় খুঁজে পাচ্ছেন না। আপনার পাশেই কোন এলাকায় হয়ত কারো সাহায্যের দরকার; কিন্তু আপনি তাকে সাহায্য করতে পারছেন না, তার তথ্য না জানার কারণে। এই তথ্যের, যোগাযোগের বাঁধাটা দূর করতেই ‘হাত বাড়াও’ অ্যাপটি- যোগ করছেন সাবির সিদ্দিকী।

তিনি আরো জানান, অ্যাপটির মাধ্যমে সাহায্য নিতে হলে দাতা এবং গ্রহীতা উভয়েই একাউন্ট খুলতে পারবেন। তারা তাদের তথ্য সম্পূর্ণ গোপন রেখে সাহায্য আদান-প্রদান করতে পারবেন। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সংস্থাও একাউন্ট খুলে সাহায্য করতে পারবে।


মন্তব্য