গবেষক দলে বাংলাদেশী

‘ইনফ্লামেটরি বাওল ডিজিস’ চিকিৎসায় আশার আলো

ইনফ্লামেটরি বাওল ডিজিস (Inflammatory Bowel Disease) খাদ্যনালীর স্থায়ী রোগ। বর্তমানে চিকিৎসায় রোগটি ভাল হয় না। তবে গবেষণায় এই রোগের নতুন কারন ও কার্যকর চিকিৎসা আবিষ্কৃত হয়েছে। যা এই রোগের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো জাগিয়েছে।

নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি ল্যাঙ্গন মেডিকেল সেন্টারের গবেষক ডক্টর কেন ক্যাডওয়েলের নেতৃত্ব এই গবেষণায় জড়িত জাপানি গবেষক ডক্টর মাথসুজাওয়া ইউ, বাংলাদেশী গবেষক ডক্টর জাহিদ দেওয়ান শামীম এবং আমেরিকান গবেষক ডক্টর লুইস, লুসি, মাইকেল, জেসিকাসহ ১৫ জন।

ইনফ্লামেটরি বাওল ডিজিস দুই ধরনের- ১. Ulcerative Colitis (আলসারেটিব কলাইটিস) ২. Crohn’s Disease (ক্রোহন’স ডিজিস)। এই রোগে তীব্র ডায়রিয়া, পেটে ব্যাথা ও পেট কামড়ানো, জ্বর ও দুর্বলতা, মলের সাথে রক্ত এবং শরীরের ওজন কমে যায়। এই রোগের সঠিক কারণ এখনও জানা যায় নাই। তবে গবেষকেরা ইনফ্লামেটরি বাওল ডিজিস-এর নতুন কারন ও কার্যকর নতুন চিকিৎসা আবিষ্কার করেছেন। যা এই রোগের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো জাগিয়েছে।

গবেষণালব্ধ ফল জার্নাল অব এক্সেপেরিমেন্টান মেডিসিন (Journal of Experimental Medicine) ডিসেম্বর ২০১৭ এবং Crohn’s & Colitis Congress ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এবং নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি ল্যাঙ্গন মেডিকেল সেন্টারের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে। জার্নাল অব এক্সেপেরিমেন্টান মেডিসিন (Journal of Experimental Medicine) বিশ্বের বিখ্যাত জার্নালের একটি (Impact Factor about 12)।

চলমান এই গবেষণায় এখন অধিক selective and specific নতুন ওষুধ নিয়ে কাজ হচ্ছে ইনফ্লামেটরি বাওল ডিজিস (Inflammatory Bowel Disease)-এর চিকিৎসার জন্য। নতুন ওষুধের কার্যকারিতা এক কথায় অসাধারণ। নতুন ওষুধের টার্গেট অধিক selective and specific হওয়ায় পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া অনেক কম। তবে নতুন ওষুধটির নাম বলার সময় এখনও আসেনি বলে জানান গবেষক ড. জাহিদ দেওয়ান শামীম।

শামীম রাজশাহীর বাগমারার সন্তান। রাজশাহী মেডিকেল থেকে ১৯৯৫ সালে এমবিবিএস করে জাপানে পাড়ি জমান ১৯৯৮ সালে উচ্চতর শিক্ষার জন্য। জাপানের টোকিও মেডিকেল এবং ডেন্টাল ইউনিভার্সিটি থেকে ২০০৪ পিএইচডি শেষ করে উচ্চতর গবেষণার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি ল্যাঙ্গন মেডিকেল সেন্টারে সিনিয়র সাইন্টিষ্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ