বুয়েট প্রশাসন আন্দোলনকারীদের সব দাবি মেনে নিল

বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) শিক্ষার্থীদের মধ্যে কেউ র‌্যাগিং ও রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকলে সর্বোচ্চ শাস্তি ‘আজীবন বহিষ্কার’ নির্ধারণ করে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সর্বশেষ দাবি এটি ছিল। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নিল বুয়েট প্রশাসন।

গত সোমবার (২ ডিসেম্বর) রাতে বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বুয়েটে কেউ সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি করলে কিংবা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে রাজনীতিতে জড়িত থাকলে, রাজনৈতিক পদে থাকলে, সর্বোচ্চ শাস্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কার। এ ছাড়ারাজনীতি করতে কাউকে উদ্বুদ্ধ বা বাধ্য করলে অপরাধ সাপেক্ষে শাস্তি সতর্কতা, জরিমানা, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে কোনো মেয়াদে বহিষ্কার করা হবে।
file (1)এর আগে, গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। এ ঘটনার পর থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে ১০ দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। সর্বশেষ তিন দফা দাবি তোলেন তারা। দাবিগুলো হলো- মামলার অভিযোগপত্রের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার, বুয়েটের আহসানউল্লাহ, তিতুমীর ও সোহরাওয়ার্দী হলে ঘটে যাওয়া নির্যাতনের বিষয়ে অভিযুক্তদের অপরাধ অনুযায়ী শাস্তি প্রদান- সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি ও নির্যাতনের বিষয়ে শাস্তির আইন। এর জন্য প্রশাসন তিন সপ্তাহের সময় চায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার আগেই তাদের সব দাবি মেনে নিয়েছে প্রশাসন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ