এক যুগ ধরে পদোন্নতি বন্ধ চিকিৎসকদের, উপাচার্যকে স্মারকলিপি

এক যুগ ধরে পদোন্নতি বন্ধ চিকিৎসকদের, উপাচার্যকে স্মারকলিপি
অবস্থান কর্মসূচি  © টিডিসি ফটো

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তিকে তৃতীয়বারের মত স্মারকলিপি দিয়েছে পদোন্নতিপ্রার্থী চিকিৎসকরা। আজ ‍বৃহস্পতিবার উপাচার্যের দপ্তরে অবস্থান নিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছেন তারা। এতে প্রায় দুই শতাধিক পোস্ট গ্রাজুয়েট কর্মকর্তা অংশ নেন।

জানা গেছে, প্রায় দেড় যুগের বেশি সময় ধরে পদোন্নতি বন্ধ থাকায় এর আগে গত ১ ডিসেম্বর ২০১৯ প্রথম দফা আন্দোলন করেন তারা। সেদিন প্রথম স্মারকলিপি দেন এই চিকিৎসকরা। এরপর ১৪ জানুয়ারি ২০২০ আরো একবার স্মারকলিপি দিয়ে দাবি দাওয়া পেশ করেন এই কর্মকর্তারা। এবার তৃতীয়বারের মতো আন্দোলনে নেমেছেন তারা।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, বিএসএমএমইউ একটি বিশ্ববিদ্যালয় হলেও স্থায়ীভাবে নিয়োগকৃত চিকিৎসকদের পদোন্নতির সুনির্দিষ্ট নীতিমালা নেই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পরবর্তীতে যারা পোস্ট গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করবেন, এ ধরনের চিকিৎসকদের পদোন্নতির ক্ষেত্রে একটি নীতিমালা ছিল যেখানে পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করার পরে তাদেরকে স্ববেতনে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেয়া হতো।

পরবর্তীতে ডিপার্টমেন্টের প্রয়োজন অনুযায়ী সেই পদে আত্মীকরণ করা হতো কিন্তু ২০০৯ সালে সেই আইনটি অজানা কারণে রহিত হওয়ার অভিযোগ করেন এই চিকিৎসকরা। তারা জানান, প্রায় দুই শতাধিক চিকিৎসক পদোন্নতিবঞ্চিত অবস্থায় আছে।

আন্দোলনকারীদের বলছেন, যারা পদোন্নতিবঞ্চিত আছে তাদের অনেকের অবসরের সময় খুব ঘনিয়ে আসছে। এই চিকিৎসকরা প্রায় ৪ বছর যাবৎ অনেকে পদোন্নতি না পেয়ে মেডিকেল অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। যদিও তাদের অনেকের এফসিপিএস ও এমডি নমক বাংলাদেশের সেরা ডিগ্রীগুলো সম্পন্ন করা আছে।


মন্তব্য