বিশ্বের সব রেমডেসিভির ওষুধ কিনে নিল যুক্তরাষ্ট্র

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় আশা জাগানো ওষুধ রেমডেসিভির। প্রাথমিক পরীক্ষার ফলে জানা গেছে, রেমডেসিভির ব্যবহার করে করোনা রোগী দ্রুত সারিয়ে তোলা যাচ্ছে। তবে এর কিছু পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া রয়েছে। এমতাবস্থায় বিশ্বে আগামীতে তৈরি হতে যাওয়া প্রায় সব রেমডিসিভির ওষুধ মার্কিন প্রশাসন কিনে নিয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

জানা গেছে, রেমডেসিভির ওষুধের পেটেন্ট যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বায়োফার্মাসিউটিক্যাল কম্পানি গিলিয়াড সায়ন্সেসের। ওষুধটি প্রথমে ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য তৈরি করা হয়েছিল।

করোনার টিকা হিসেবে প্রাথমিক পরীক্ষায় দেখা গেছে, কভিড-১৯ সহ কিছু ভাইরাস মানুষের দেহে প্রবেশ করে যেভাবে বংশবৃদ্ধি করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, সেই প্রক্রিয়া কিছুটা হলেও থামানোর সক্ষমতা রয়েছে রেমডেসিভির ওষুধের।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য ও মানবসেবা বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গিলিয়াডের কাছ থেকে রেমডেসিভির ওষুধের পাঁচ লাখ ডোজ কেনার একটি চুক্তি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। চুক্তিটির আওতায় চলতি মাসেই তৈরি রেমডেসিভির ওষুধের শতভাগ, আগস্টের ৯০ শতাংশ এবং সেপ্টেম্বরের ৯০ শতাংশ কিনে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

কভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় রেমডেসিভির কার্যকর হতে পারে, এমন গবেষণার তথ্য গিলিয়াড সায়েন্সেস প্রকাশ করার পর গত সপ্তাহে করোনা রোগীদের জরুরি চিকিৎসার জন্য ওষুধ ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ। এ ওষুধ ব্যবহার করে গুরুতর রোগীদের হাসপাতালে থাকার সময় চার দিন পর্যন্ত কমে আসতে পারে।

সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে এক কোটি পাঁচ লাখ ৯২ হাজার একশ ৬৪ জন এবং মারা গেছে পাঁচ লাখ ১৪ হাজার ৭২ জন। তার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ২৭ লাখ ২৭ হাজার নয়শ ৯৬ জন এবং মারা গেছে এক লাখ ৩০ হাজার এবশ ২৩ জন। সারাবিশ্বে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ দেশের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র রয়েছে এক নম্বরে। (সূত্র: বিবিসি)


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ