শিশুদের ৩ সমস্যায় ফেলে মাস্ক— সর্তক করলেন চিকিৎসকরা

  © প্রতীকী ছবি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে থেকে বাঁচতে মাস্ক এখন নিত্যপ্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে। তবে মাস্কের ব্যবহারে তিন সমস্যায় পড়েন শিশুরা। জাপানের একদল শিশু বিশেষজ্ঞ এমনই হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, দুই বছরের কম বয়সী শিশুদের কোনভাবেই মাস্ক পরানো যাবে না। কারণ এতে শ্বাস নেয়া তাদের জন্য কঠিন হয়ে যায় এবং শ্বাসরুদ্ধ হওয়ার যথেষ্ট ঝুঁকি তৈরি হয়। এমনকি মাস্ক তাদের মধ্যে স্ট্রোকেরও ঝুঁকি তৈরি করে। 

প্রধানমন্ত্রী সিনজো আবে সোমবার জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার ঘোষণা দেয়ায় জাপানের রাস্তাঘাটে মানুষের চলাচল শুরু হয়েছে। সেই প্রেক্ষিতে চিকিৎসকরা সবাইকে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা ও ফেসমাস্ক পরার আহবান জানিয়েছেন।

তবে দুই বছরের নিচে শিশুদের যাতে পরানো না হয় সে বিষয়ে সতর্ক করেছে জাপানের প্যাডিয়াট্রিক অ্যাসোসিয়েশন। চিকিৎসকদের এই সংগঠনটি বলছে, মাস্ক শিশুদের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। মাস্ক পরার পর শিশুরা সহজে শ্বাস নিতে পারে না, কারণ তাদের নাকের ছিদ্র অনেক ছোট। এতে তাদের বুকে চাপ তৈরি হয়। এমনকি মাস্ক তাদের মধ্যে স্ট্রোকেরও ঝুঁকি তৈরি করে।

সংগঠনটি তাদের ওয়েবসাইটে এক নোটিশে আরো জানায়, শিশুদের মাস্ক পরানো বন্ধ করুন। শুধু তাদের সবধানে রাখলেই হবে। কারণ শিশুদের মধ্যে করোনা ছড়ায় পরিবার থেকেই। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) ও আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব প্যাডিয়াট্রিকস ও দাবি করেছিল, দুই বছরের কম বয়সী শিশুদের ফেসমাস্ক পরানো যাবে না।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ