ডিজিএইচএসকে ১১ হাজার পিপিই দিল এফআইসিসিআই

  © টিডিসি ফটো

বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শীর্ষ সংগঠন ফরেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফআইসিসিআই) করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জাতিকে সহায়তা করার জন্য স্বাস্থ্যসেবা অধিদফতরের ডিরেক্টর জেনারেলের (ডিজিএইচএস) কাছে ১১ হাজার ইউনিট উচ্চমানের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) স্যুট হস্তান্তর করেছে। 

এরমধ্যে এক হাজার পিপিই মেডিক্যাল গ্রেডের বিশেষীকরণ করে তৈরি করা ও ১০ হাজার হাসপাতালের ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের জন্য। যেমন- ডাক্তার, নার্স ও সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের কর্মীদের জন্য। যারা করোনাভাইরাস রোগীদের চিকিৎসাসেবা প্রসারিত করছেন।

এফআইসিসিআই সদস্যদের পক্ষ থেকে সভাপতি মিসেস রূপালী হক চৌধুরী স্বাস্থ্যসেবা অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানার কাছে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ পিপিই হস্তান্তর করেন। এসময় এফআইসিসিআইয়ের ইসি সদস্য শ্রীমতি শ্বেপা ভৌমিক, নির্বাহী পরিচালক টি আই এম নুরুল কবির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মিসেস রূপালী চৌধুরী এফআইসিসিআইয়ের সমস্ত সদস্য ও বহুজাতিক সংস্থাগুলো অপারেটরদের বাংলাদেশের প্রতি তাদের যে প্রতিশ্রুতি তার পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, আমরা বিশ্বাস করি এ চ্যালেঞ্জিং মহামারি পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকার ও স্বাস্থ্যসেবা অধিদফতর সংশ্লিষ্ট সব পেশাদার চিকিৎসা সেবকদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। 

পিপিই প্রস্তুত ও হস্তান্তরের প্রক্রিয়াটি সহজ করার জন্য তিনি ডিজিএইচএস, ওষুধ প্রশাসন ও এনবিআরের কাস্টম বন্ড হাউসসহ প্রাসঙ্গিক সব অংশীজনদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। ওষুধ প্রশাসনের নির্দেশনায় স্থানীয়ভাবে এ উচ্চমানের পিপিই তৈরিতে সহায়তা ও নির্বিঘ্নে সরবরাহের জন্য তিনি ইয়ংওয়ান্স বাংলাদেশকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।

এফআইসিসিআইয়ের সদস্যরা কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের পর থেকে এ সংকট কাটিয়ে উঠতে সরকারকে, বিভিন্ন সংগঠন ও উন্নয়ন সংস্থাসমূহকে সহায়তা করে আসছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ