দেশে করোনাভাইরাস থেকে প্রথম সুস্থ হওয়া ফয়সাল যা বললেন

  © টিডিসি ফটো

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস থেকে প্রথম মুক্ত হয়েছেন জার্মান ফেরত ফয়সাল শেখ। তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেছেন, করোনায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার ঘরে থাকা। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয়েছে,  থাকুন। তাহলে সবাই নিরাপদ থাকতে পারবো এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে পারবো।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ে আজ মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় নিজের কথা বলেন ফয়সাল।

ভিডিও কনফারেন্সে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেন ফয়সাল শেখ। তিনি বলেন, ‘জার্মানিতে পড়াশোনা করছি। গত ১ তারিখ ছুটি কাটানোর জন্য দেশে আসি। এর ১০ দিন পর শরীরে করোনা লক্ষণ দেখা দেয়।’

ফয়সাল জানান, ‘আমার পরিবার ও সবার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আমি নিজে আইইডিসিআর-এ যাই টেস্ট করাতে। তারা আমাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেন। পরীক্ষার একদিন পর জানায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত।’

তিনি বলেন, ‘আইইডিসিআর আমাকে কোয়ারেন্টিনে নেয়ার কথা বললে রাজি হই। সেখান থেকে কুয়েত-মৈত্রী হাসপাতালে রাখা হয়। ১০ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকি,  বন্ধু-বান্ধব, পরিবারের যাদের সঙ্গে দেখা হয়েছিল তাদেরকেওে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। ১০ দিনে বারবার টেস্ট করে পর নেগেটিভ আসে। এরপর পরিবারের কাছে ফিরে যাই।’

ফয়সাল বলেন, ‘দেশের মানুষের কাছে অনুরোধ- করোনায় সবচেয়ে বড় ব্যাপার ঘরে থাকা। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয়েছে থাকুন। তাহলে সবাই নিরাপদ থাকতে পারবো এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে পারবো। এসময় সুস্থ হয়ে ফিরে আসতে পারায় প্রধানমন্ত্রীসহ সবার প্রশংসা করেন এবং ধন্যবাদ জানান ফয়সাল শেখ।

ফয়সালকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা খুব খুশি তুমি সুস্থ হয়ে ফিরে গেছ। মায়ের সন্তান মায়ের কোলে ফিরে গেছে।’ আর ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ফয়সাল শেখ ঢাকায় করোনা শনাক্ত হওয়া প্রথম রোগী।’


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ