যে সব খাবার দূর করবে অনিদ্রা

  © সংগৃহীত

সারাদিন ক্লান্ত থাকার পর হাজারো চেষ্টা করে ঘুমাতে পারেন না অনেকে। যেখানে একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা ঘুমের প্রয়োজন, সেখানে হয়তো বা কেউ কেউ ২-৩ ঘণ্টা ঘুমাচ্ছে। যার কারণে শরীরে ক্লান্তি, দুর্বলতা এবং মেজাজ খিটখিটে ভাব চলে আসে।

মূলত এটি একটি রোগ যার নাম ইনসমনিয়া। এ রোগ দূর করার জন্য অনেকেই ওষুধ নেন যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ব্যাপক ক্ষতিকর। কিন্তু একটু সচেতন হলেই রাতের কিছু খাদ্যাভ্যাসে আপনি মুক্তি পেতে পারেন অনিদ্রা থেকে। জেনে নিন খাবারগুলোর নাম-

মধু:
মধুর হাজারো উপকারিতার মধ্যে একটা অনেক বড় উপকারিতা হচ্ছে এটা অনিদ্রা দূর করতে অনেক সহায়তা করে। ঘুমাতে যাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে হার্বাল চা বা হালকা গরম দুধের সঙ্গে এক চামচ মধু মিশিয়ে খাওয়া যেতে পারে। মধু স্নায়ু শীতল করতে সাহায্য করে। ফলে রাতে ঘুম হয় অনেক ভালো, অনিদ্রা দূরীভূত হয়।

বাদাম:
অনিদ্রা দূর করার জন্য আরেকটা কার্যকরী খাবার হচ্ছে বাদাম। শরীরে সেরোটোনিন হরমোনের পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে বাদাম। এই হরমোন মস্তিষ্ককে সুখের অনুভূতি সৃষ্টি করতে সাহায্য করে। বাদামেও রয়েছে ট্রাইপটোফ্যান এবং ম্যাগনেসিয়াম। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১০ থেকে ১৫টি বাদাম ভালো ঘুম হতে সাহায্য করবে।

দই:
দুগ্ধজাত খাবার হিসেবে দইয়ে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। এই উপাদান ঘুমে সাহায্যকারী ট্রাইটোফ্যান এবং মেলাটোনিন হরমোন বাড়াতে সাহায্য করে। তাই রাতে ঘুমানোর আগে দই খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুললে ভালো ঘুম হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। তবে এই দই অবশ্যই খাঁটি হতে হবে। খাঁটি গরুর দুধ দিয়ে বানানো দই খেলেই অনিদ্রানাশক উপকারিতাটা পাবেন।

ভেষজ চা:
অনেকে মনে করেন লাল চা বা ‘গ্রিন টি’-এর মতো ক্যাফেইন সমৃদ্ধ ভেষজ চা গুলো রাতে ঘুমে ব্যঘাত ঘটাতে পারে। কিন্তু আসলে তা নয়। গবেষণায় দেখা গেছে ক্যামোমাইল সমৃদ্ধ ভেষজ চা দুশ্চিন্তা কমায় এবং অনিদ্রার সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। অর্থাৎ অনিদ্রা দূর করতে গ্রিন টি অনেক আদর্শ ভূমিকা পালন করে।

অর্গানিক ডিম:
অর্গানিক বা ভেজালমুক্ত ডিমে রয়েছে ট্রাইটোফ্যান নামক এক ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড। এই প্রকারের অ্যামাইনো অ্যাসিড ঘুম বাড়াতে সাহায্য করে থাকে। তাই ঘুমানোর কিছুক্ষণ আগে বা রাতের খাবারের সময় যদি অর্গানিক ডিম রাখা যায়, তবে তা অনিদ্রা রোধ করতে অনেক সাহায্য করে। তবে এ জন্য অবশ্যই সঠিক অর্গানিক ডিমের সন্ধান পেয়ে সেই অর্গানিক ডিম খেতে হবে।

আঙ্গুর-আপেল:
আঙ্গুর ফল অনীদ্রা দূরীকরণে বিশেষভাবে সাহায্য করে। এটা শরীরে প্রচুর পরিমাণে মেলাটোনিন হরমোন তৈরি করতে সাহায্য করে। আর এই হরমোন ঘুমে সাহায্য করে। অন্যান্য ফলের মধ্যে আপেল, পিচ, কলা এসব ফল অনিদ্রা দূর করে।

কলা:
কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম। আর মানুষের শরীরে পটাশিয়ামের উপস্থিতি, রাতে ঘুম কতটা গাঢ় হবে সেটি নিয়ন্ত্রণ করে। তাছাড়া কলার ট্রাইপটোফ্যান এবং ম্যাগনেসিয়াম রাতে ঘুম হতে সাহায্য করে। তাই ঘুমের ওষুধ বাদ দিয়ে রাতে নিয়মিত কলা খেয়ে বিছানায় যেতে পারেন। ঘুম হবে, নিশ্চিত।

শাকসবজি:
নিয়মিত রাতের খাবারে শাকসবজি খেলে অনিদ্রা জনিত কোন সমস্যাই থাকে না আর। তাই রাতের খাবারে ভারী খাবার পরিহার করে শাকসবজি জাতীয় খাবার গ্রহণ করুন, শান্তির ঘুম ঘুমান।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ