দূরত্ব যতই হোক ভাড়া ৫ টাকা

প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেয়া বাস  © সংগৃহীত

দূরত্ব যাই হোক চট্টগ্রামের স্কুল শিক্ষার্থীরা মাত্র পাঁচ টাকা ভাড়ায় স্কুলে যাতায়াতের সুযোগ পাচ্ছে। প্রথমবারের মতো তাদের এমন সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি চট্টগ্রামের স্কুল শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ১০টি বাস উপহার দিয়েছেন।

প্রাথমিকভাবে নগরের দুই রুটে চলাচল করবে এসব বাস। রুটগুলো হচ্ছে বহদ্দারহাট-চকবাজার-জামালখান-কোতোয়ালি-কলেজিয়েট স্কুল এবং অক্সিজেন-মুরাদপুর-জিইসি-টাইগারপাস-আগ্রাবাদ-বারিক বিল্ডিং। শনিবার (২৪ আগস্ট) সমকাল পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। প্রতিবেদনটি লিখেছেন শৈবাল আচার্য্য।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি বাস চলাচলের বিষয় দেখাশোনা করবে। কমিটিতে ছাত্র ও অভিভাবক প্রতিনিধিদের রাখা হয়েছে। প্রতিটি বাস প্রতিদিন সকাল-দুপুর-বিকেল এই তিন বেলায় তিনটি ট্রিপ করে মোট ছয়বার আসা-যাওয়া করবে। এ হিসাবে প্রতিটি ট্রিপে আসা ও যাওয়া মিলে প্রায় দুইশ শিক্ষার্থী যাতায়াত করতে পারবে। তিন ট্রিপে এ সংখ্যা দাঁড়াবে ছয়শ জনে। প্রতিটি বাসে দৈনিক তেল, চালক ও সহকারীর খরচ পড়বে প্রায় তিন হাজার টাকা। এই খরচের ওপর নির্ভর করেই শিক্ষার্থীদের প্রত্যেকের ভাড়া পাঁচ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন সমকালকে বলেন, চট্টগ্রামের স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ১০টি বাস উপহার দিয়েছেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি বাসযাত্রা উদ্বোধন করতে পারেন। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করছি। তিনি সম্মতি দিলে দ্রুত তা করা হবে। আর প্রধানমন্ত্রীকে পাওয়া না গেলে শিক্ষা উপমন্ত্রীকে দিয়ে বাসগুলোর উদ্বোধন করা হবে।

জেলা প্রশাসক বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা ভাড়ার এই টাকা দিয়ে বাসগুলোর চালক ও তেল খরচ মেটানো হবে। এসব বিষয় মনিটর করতে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সিগন্যাল পাওয়ার পর বাসগুলো রাস্তায় চলাচল শুরু করবে। প্রাথমিকভাবে দুটি রুটে এসব বাস চলাচল করবে। পরে রুটের সংখ্যা আরও বাড়ানো হতে পারে।

এদিকে, বাসগুলোর চলাচলসহ যাবতীয় বিষয়ে শিক্ষার্থী, ছাত্র প্রতিনিধি ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন। বৈঠকে বাসগুলো চলাচল ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১০ লাখ টাকার ছাত্রফান্ড গঠনের ঘোষণা দেন তিনি। সার্বিক বিষয় তদারকির জন্য অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ম. আবু হাসান সিদ্দিকের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠনের কথাও জানান তিনি। কমিটিতে অভিভাবক ও ছাত্রপ্রতিনিধিরা থাকবে। বাসগুলোতে ভাড়া বাবদ আয়ের বাড়তি অংশ ছাত্র ফান্ডে থাকবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি বলেন, শিক্ষা ও শিক্ষার্থীবান্ধব বলেই প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবি হিসেবে ১০টি বাস উপহার দিয়েছেন। এ জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। বাসগুলো চলাচল করলে শিক্ষার্থীরা মাত্র পাঁচ টাকা ভাড়া দিয়ে খুব সহজে যাতায়াত করতে পারবে। এতে দুর্ঘটনার ঝুঁকিও কমে আসবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর জাঁকজমক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাসগুলোর উদ্বোধন করা হবে।

চট্টগ্রামের নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক ও ছাত্র প্রতিনিধি মিনহাজ চৌধুরী রিফাত বলেন, নতুন ১০টি বাস পাওয়ার বিষয়টি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের একটি সফলতা। শিক্ষার্থীদের নিরাপদ যাতায়াতের সুবিধার্থে বাসের ব্যবস্থা করায় প্রধানমন্ত্রীকে আমরা ধন্যবাদ জানাই। বাসগুলো চলাচল করা শুরু করলে শিক্ষার্থীরা নিরাপদে যাতায়াত করতে পারবে। এতে স্বস্তিতে থাকবেন অভিভাবকরা। গত বছর নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের দাবিতে টানা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীরা সরকারের কাছে নয়টি দাবি উত্থাপন করেন। এর মধ্যে অন্যতম একটি দাবি ছিল তাদের জন্য বাস দেয়া।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ