আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ
  © সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক একটি অলিম্পিয়াডে অংশ নিয়ে প্রথমবারের মতো চারটি ব্রোঞ্জ মেডেল জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজন করা ইন্টারন্যাশনাল ইকোনোমিকস অলিম্পিয়াডে (আইইও) অংশ নিয়ে এ অর্জন এসেছে। অর্থনীতি, ব্যবসা এবং আর্থিক খাতের সমস্যা সমাধানে এ অলিম্পিয়াডের আয়োজন করা হয়।

এতে ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসি রাউন্ড, ইকোনোমিকস রাউন্ড এবং সবশেষে থাকে বিজনেস কেস রাউন্ড। সবশেষ রাউন্ডে ২৯টি দেশের মধ্যে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে বাংলাদেশ। আর ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসি রাউন্ডে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৫ম স্থানে।

কাজাখস্তানের রাজধানী নুর সুলতানে এবারের আইইও আয়োজিত হওয়ার কথা ছিল। তবে করোনাভাইরাসের কারণে অনলাইনের মাধ্যমে এ প্রতিযোগিতা সম্পন্ন করা হয়। এর আয়োজক কর্তৃপক্ষ বিশেষভাবে তৈরি প্ল্যাটফর্মে প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। তারা বিশ্বের সব প্রান্ত থেকে এতে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়।

অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশের সাত সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল গঠন করা হয়। এরমধ্যে পাঁচজন অংশগ্রহণকারী। তারা হল- সানিডেল স্কুলের সৈয়দ নাজিফ ইশরাক, সানবিমস স্কুলের ফারাজ এম চৌধুরী, দর্পন বড়ুয়া ও এসফার জাওয়াদ এবং এসএফএক্স গ্রিনহেরাল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রমি জামান। 

আর দুজন দলনেতার মধ্যে ছিলেন, ঢাকা স্কুল অব ইকোনোকিকস’র লেকচারার ও বাংলাদেশ ইকোনোমিকস কমিটির (বিডিইও) সভাপতি মো. আল আমি পারভেজ এবং ক্যাপস্টোন স্কুলের চেয়ারম্যান ও বিডিইও’র কোচ আখতার আহমেদ।

অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ব্যক্তিগত ইভেন্টে নাজিফ, দর্পন, ফারাজ ও প্রমি ব্রোঞ্জ মেডেল লাভ করে। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বড় অর্জন। এরমধ্যে নাজিফ ইশরাক সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছে। এছাড়া ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসিতে প্রমি সেরা দশের মধ্যে ছিল।

যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, সুইজারল্যান্ড, ভারত, ইরানের মতো দেশের প্রতিযোগিদের পেছনে ফেলে বাংলাদেশের কিশোররা এই অসাধারণ সম্মান বয়ে এনেছে দেশের জন্য।

এবারের আয়োজনে বিশ্বের বিখ্যাত সব ব্যক্তিদের সঙ্গেও সাক্ষাতের সুযোগ করে দিয়েছিল আয়োজক কমিটি। এরমধ্যে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির অর্থনীতির অধ্যাপক এরিক মাসকিন ও এন গ্রেগরি ম্যানকিউ এর মতো বিখ্যাত ব্যক্তিরা ছিলেন। এছাড়া অর্থনীতির উপর লেকচার, বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, খেলাধুলা ও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার সুযোগ ছিল।


মন্তব্য