অনলাইন চিলড্রেন আর্ট কম্পিটিশনে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা

প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া শিশুরা  © টিডিসি ফটো

করোনার মহামারীর মধ্যে বাচ্চারা ঘরবন্দি। ঘরে বসে থাকতে থাকতে তাদের জীবন হয়ে উঠে এক বিভাষীকাময়। ঘর থেকে বের হয়ে খেলাধুলা কিংবা কোথাও ঘুরতে বেড়াতে পারছেনা তারা। ফলে তাদের জীবন হয়ে উঠেছে একঘেয়েমি। তাই সৃজনশীল উদীয়মান এই শিশুদের কথা চিন্তা করেই ‘সিজেডএস-৯৮ ব্যাচ ফ্রেন্ডস’ আয়োজন করেছে ‘অনলাইন চিলড্রেন আর্ট কম্পিটিশন’।

গত ১৪ থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত ‘আওয়ার চিলড্রেন আর আওয়ার সিজেডএস-৯৮’ স্লোগানকে সামনে রেখে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগিতায় মোট ৪৩ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। প্রতিটি শিশু শিল্পীই তাদের নিজস্ব চিন্তা চেতনার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে তাদের চিত্রকর্মে- জানায় ‘সিজেডএস-৯৮ ব্যাচ ফ্রেন্ডস’।

‘সিজেডএস-৯৮ ব্যাচ ফ্রেন্ডস’ জানায়, বিভাগ অনুসারে নাম ও চিত্রকর্মসহ গত শুক্রবার (২৬ জুন) প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের নাম প্রকাশ করা হয়। এই ৪৩ জন শিশু শিল্পীদের চিত্রকর্মের মধ্যে মোট তিন বিভাগ থেকে ১০ জন শিশু শিল্পীকে এবং এই ১০ শিশু শিল্পীর মধ্যে একজনকে "গ্রেন্ড এ্যাওয়ার্ড" পদবীতে নির্বাচন করেন বিচারকদের জুরি বোর্ড।

আগামী ৬ জুলাইয়ের মধ্যে অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীর সাটিফিকেট, গিফ্ট সহ বিজয়ীদের ক্রেস্টসহ মুল্যবান সার্টিফিকেট পৌঁছে দেওয়া হবে জানিয়েছে ‘সিজেডএস-৯৮ ব্যাচ ফ্রেন্ডস’। 

প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা

গ্রেন্ড এ্যাওয়ার্ড-খ বিভাগ থেকে অর্জন করে হাফসা হোসাইন 

(ক বিভাগ) বিষয়- "উন্মুক্ত"
যুগ্মভাবে প্রথম স্থান অধীকারী 
(১ম)  ওয়াসী নাজমুল ভূঁইয়া ফিহা 
(১ম)  আইফনিন লায়লা শিজা 
দ্বিতীয় স্থান আধীকারী- মিফতাহুর রহমান
তৃতীয় স্থান আধীকারী - মোঃ আরিয়ান হায়দার

(খ বিভাগ) বিষয়-  গ্রাম বাংলা ও প্রকৃতি 
প্রথম স্থান অধীকারী- হাফসা হোসাইন
দ্বিতীয় স্থান অধীকারী- মায়িদা আলম খান 
তৃতীয় স্থান অধীকারী- নাবীহা তাহসীন

(গ বিভাগ) বিষয়- করোনা ও তার পরিস্থিতি 
প্রথম স্থান অধীকারী- শাফিনাজ শাহরিন মানিতা
দ্বিতীয় স্থান অধীকারী- আনিসা তাসনিম ইমাম
তৃতীয় স্থান অধীকারী- জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ

প্রতিযোগী ৪৩ জনে এর নাম; বয়স অনুসারে 

(২ থেকে ৬ বছর) 
ওয়াসী নাজমুল ভূঁইয়া ফিহা, তাহমিদ হাসান ইমাম, আনুশি জে তাজওয়ার, মোঃ নুজাইফ হায়দার মানাফ, মোঃ আরিয়ান হায়দার, মেহরিশ নাজাফ, মিফতাহুর রহমান, মোঃ নুরাইজ হায়দার মিশরাক, মোঃ জবাদে আহমেদ, মোঃ সাজ্জাদুল আরিফিন, আমিনা বিনত আশাদ, আইফনিন লায়লা শিজা।

(৭ থেকে ১০ বছর) 
ওয়াফী বিনতে নাজমুল, আবু হুরাইরাহ, ওয়াজীহা ফোরকান জিহা, মোঃ রেজওয়ানুল হক সাইফ, ৫উন্মে খায়রুল আদিবা, আব্দুল্লাহ আল ওয়াসির, জান্নাতুল হাফসা নাহার মুন, নাজিয়া খন্দকার রাহা, তাহিরা খন্দকার হাফসা, তাজ আল দ্বীন চৌধুরী, জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ, শারাফ হাসান আদিয়ান, রশ্মিয়া চৌধুরী, মোঃ জাওয়াদ আজমাঈন, জান্নাতুল তালহা নাহার মাইমুনা, আরিয়া মুসসারাত, মাইদা আলম খান, বেদত্রয়ী ত্রিধারা দেবনাথ, নুসাইবা নাইম, হাফসা হোসাইন, নাবীহা তাহসীন, ফারিসা সিদ্দিকা, ফৌজিয়া আক্তার।

(১১ থেকে ১৫) 
শাফিনাজ শাহরিন মানিতা, জুলিয়া আফরিন, রওজাতুন মিম নওমি, জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ, আনিসা তাসনিম ইমাম, ফারসিদ রহমান, খালিদ হোসাইন, হাসিবুল মুনতাসির।

বিচারকদের জুরি বোর্ডে ছিলেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী: 
শিশির ভট্টাচার্য্য বিভাগীয় চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক, অংকন ও চিত্রায়ণ বিভাগ, চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়; বিশিষ্ট মৃৎশিল্পী দেবাশীষ পাল বিভাগীয় চেয়ারম্যান ও সহযোগী অধ্যাপক, মৃৎশিল্প বিভাগ, চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়; চিত্রশিল্পী কামাল উদ্দিন সহকারী অধ্যাপক, অংকন ও চিত্রায়ণ বিভাগ, চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ