সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েও বিসিএস ক্যাডার হওয়ার স্বপ্ন অধরা ৬১ জনের

  © ফাইল ফটো

চূড়ান্ত পরীক্ষায় ক্যাডার পদে উত্তীর্ণ হয়ে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) সুপারিশ প্রাপ্ত হলেও নিয়োগ বঞ্চিত ৩৭তম বিসিএসের ৬১ জন প্রার্থী। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন ব্যক্তির দ্বারে দ্বারে ঘুরেও নিয়োগের জন্য কোনো  সমাধান পাচ্ছেন না তারা। ফলে তাদের ক্যাডার হওয়ার স্বপ্ন ফিকে হয়ে যাচ্ছে।

জানা গেছে, এসব প্রার্থী পিএসসি থেকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে নেতিবাচক প্রতিবেদন দেওয়ায় নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না তারা দাবি করেছেন।

মন্ত্রণালয় বলছে, বাদ পড়াদের বিষয়ে তারা পর্যালোচনা করছে। সেটি শেষ হলে তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। বাদ পড়াদের  অভিযোগ, ৩৭তম বিসিএসের ক্যাডারদের পদায়নের সাত মাস পেরিয়ে গেছে। কিন্তু বাদ পড়াদের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

বাদ পড়া প্রার্থীরা জানিয়েছেন, তাদের মধ্যে প্রশাসনে ১৩ জন, শিক্ষায় ১০ জন, পুলিশে দুজন, চিকিত্সক ১৪ জন, কৃষিতে দুই জনসহ আরো কয়েকটি ক্যাডারের কয়েকজন আছেন। কারো বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। নেতিবাচক প্রতিবেদনের কারণে চূড়ান্ত গেজেটে তাদের নাম আসেনি।

বিসিএসে নিয়োগের জন্য সুপারিশ প্রাপ্তদের এসবি এবং ডিসি অফিসের মাধ্যমে তদন্ত করা হয়। তদন্তে নিয়োগ বঞ্চিতদের সরকারবিরোধী রাজনৈতিক পরিচয় উল্লেখ থাকায় নিয়োগ আটকে যায়। বিসিএসে সুপারিশ পাওয়ার পর পরিবারে আশার সঞ্চার হয়েছিল। কিন্তু চূড়ান্ত প্রজ্ঞাপনে নাম না থাকায় তাদের পরিবারে সংকট তৈরি হয়েছে।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ, পদোন্নতি ও প্রেষণ অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘৩৭তম বিসিএসের গেজেটে যাদের নাম বাদ পড়েছে তারা গেজেটভুক্তির জন্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন।’

৩৭তম বিসিএসে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন এক হাজার ৩১৪ জনকে ক্যাডার হিসেবে সুপারিশ করে। এর প্রায় নয় মাস পর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এক হাজার ২২১ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এতে বাদ পড়েন ৬১ জন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ