নোবিপ্রবির মেধাবী শিক্ষার্থী সাইফ বাঁচতে চায়, দরকার ২০ লাখ টাকা

  © টিডিসি ফটো

জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনফরমেশন সাইন্স ও লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. সাইফ উদ্দিন বাঁচতে চায়। তার দুটো কিডনিই ইতিমধ্যে অকেজো হয়ে গেছে। সে বর্তমানে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সাইফের দুটি কিডনিই প্রতিস্থাপন করতে হবে, তা না হলে তাকে বাঁচানো সম্ভব নয়। এদিকে সাইফের পরিবারের কারও সঙ্গেই তার রক্তের গ্রুপ ম্যাচ না করায় পরিবারের ইচ্ছে সত্ত্বেও কেউ কিডনি দিয়ে তাকে সুস্থ করতে পারছেন না। এ অবস্থায় সাইফকে বাঁচাতে হলে অন্য কোথাও থেকে কিডনির ব্যবস্থা করেই তা প্রতিস্থাপন করতে হবে।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়ন শেষে পরিবারের হাল ধরার স্বপ্ন দেখা সাইফ করোনা প্রাদুর্ভাবের প্রথম দিকে শারীরিক সমস্যা অনুভব করলে গ্রাম্য চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। কিন্তু ১/২ মাসের মধ্যেই তার অবস্থা জটিলতর হতে থাকে। পরবর্তীতে ঢাকায় ডাক্তার দেখানো হয়। জুলাইয়ের শুরুতে জানা যায় যে, তার দুটো কিডনিই ইতিমধ্যে অকেজো হয়ে গেছে।

সাইফের বাবা জানান, ছেলেকে বাঁচাতে প্রায় ২০ লাখ টাকা লাগবে বলে ডাক্তার জানিয়েছেন। সাইফের পরিবারের পক্ষে এই ব্যয় বহন করা সম্ভব নয়। তাই পরিবারের পক্ষ থেকে সাইফের সহপাঠী, শিক্ষক, প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের দয়ালু বিত্তবানদের প্রতি সহযোগিতার আবেদন করেছেন।

এদিকে অসুস্থ সাঈফের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। তারা জানিয়েছে, শিক্ষার্থীদের জন্য এক দিনের সমপরিমাণ বেতন দেবেন। সেখান থেকে অর্ধেক অংশ শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া সংকট নিরসনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দেয়া হবে। বাকি অর্ধেক অংশ সাঈফের চিকিৎসা সেবায় ব্যয় করা হবে।

সাইফকে সহযোগীতা করতে নিচের নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

বিকাশ: 01879 373407
নগদ: 01830 016100
রকেট: 01742 268670


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ