‘পাঁচ মাস বেতন বন্ধ, মৃত্যু ছাড়া এখন আর উপায় নেই’ (ভিডিও)

  © টিডিসি ফটো

‘পাঁচ মাস যাবৎ বেতন বন্ধ, চার সন্তানকে পড়ালেখা করাতে পারছিনা, এক বেলা খেলে দু’বেলা না খেয়ে থাকতে হয়। মৃত্যু ছাড়া এখন আর কোনো উপায় নেই।’

কান্না জড়ানো কন্ঠে কথাগুলো বলছিলেন গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কর্মরত স্বামীহারা রিক্তা বেগম। শুধুমাত্র রিক্তা নন, নিয়োগ না থাকায় পাঁচ মাস যাবৎ বেতন বন্ধ রয়েছে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কর্মরত বশেমুরবিপ্রবির প্রায় ১৫৩ জন কর্মচারীর।

উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদানের পরও সমস্যার সমাধান না হওয়ায় আজ সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বেতন-ভাতা প্রদানসহ চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন কর্মচারীরা।

২-৫ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত এ কর্মচারীরা জানান, বিভিন্ন ব্যক্তির সুপারিশে সাবেক উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন তাদের কোনো ধরনের নিয়োগপত্র ছাড়াই কাজ করার অনুমতি দেন এবং দৈনিক কাজের ভিত্তিতে মাসশেষে টাকা প্রদান করতেন।

কিন্তু নতুন উপাচার্য আসার পরে নিয়োগ না থাকায় তাদের বেতন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কর্মচারীরা অভিযোগ করেন, ইতোপূর্বে খোন্দকার নাসিরউদ্দিন তাদের একাধিকবার নিয়োগ প্রদানের আশ্বাস দিলেও তা বাস্তবায়ন করেননি। বর্তমানে বেতনের অভাবে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. শাহজাহান জানান, ‘তাদের নিয়োগ প্রদান আমার ক্ষমতার বাইরে। আমি তাদের বিষয়টি জানিয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য ইউজিসিকে চিঠি প্রদান করেছি।’


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ