আন্দোলনরত বুয়েট শিক্ষার্থীদের পরবর্তী সিদ্ধান্ত আসছে

  © ফাইল ফটো

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার পর থমথমে বুয়েট ক্যাম্পাস। এই হত্যার বিচারসহ ১০ দফা দাবিতে ফের উত্তাল হয়ে উঠছে বুয়েট ক্যাম্পাস। আজ বিকাল ৫ টায় নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে দুদিন বিরতি দিয়ে সকালে ক্যাম্পাসে আবার জড়ো হন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

এর আগে সোমবার আবরার হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার কারণে গত রোববার ও গতকাল সোমবার আন্দোলন শিথিল করা হয়। আজ থেকে আন্দোলন পুরোদমে চলবে বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

আবরার হত্যার বিচার দাবিতে পরবর্তী কর্মসূচি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠক করছেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা। বুয়েট ক্যাফেটেরিয়া প্রাঙ্গনে এই বৈঠক হচ্ছে। বিকাল ৫টায় সাংবাদিকদের ব্রিফিং করে পরবর্তী কর্মসূচির বিষয়ে জানাবেন শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী মাসুম বিল্লাহ সরকার জানান, এখনও তাদের মিটিং চলছে। বিকাল ৫টায় ব্রিফিং করে সাংবাদিকদের পরবর্তী কর্মসূচি জানানো হবে।

৬ অক্টোবর শেরেবাংলা হলে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মী। আবরার বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) ছাত্র ছিলেন। তিনি থাকতেন বুয়েটের শেরেবাংলা হলের নিচতলায় ১০১১ নম্বর কক্ষে। ঘটনার দিন তাঁকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয় একই হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে। ওই কক্ষে তাঁকে নির্যাতন করে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। রাত ৩টার দিকে হল থেকেই তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর পর থেকে শিক্ষার্থীরা আবরার হত্যার ঘটনায় খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি, বুয়েট ক্যাম্পাসে সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করাসহ ১০ দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন।

শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বুয়েট ক্যাম্পাসে সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। বুয়েটের কোনো শিক্ষার্থী ছাত্ররাজনীতিতে জড়িত হলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণাও দেন তিনি। তবে শিক্ষার্থীরা বলছেন, কেবল আশ্বাস নয়, বাস্তবায়নও দেখতে চান তাঁরা।

আবরার হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ১৯ জনের মধ্যে চারজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ