আবরারের হত্যাকারীদের পা যেন বুয়েটের মাটিতে আর না পড়ে: মা

মা রোকেয়া খাতুন  © সংগৃহীত

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যাল (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ ঘটনায় তার মা রোকেয়া খাতুন বলেছেন, সারা জীবনের জন্য আমার ছেলের মুখ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আমার ছেলের পা যেহেতু আর কোনো দিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বে না, তাই আমার দাবি যাদের ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে তাদের পাও যাতে আর কোনো দিন ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে না পড়ে।

এখনো থামছে না আবরারের মায়ের কান্না। সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে প্রতিনিয়তই আকুতি তার। আবরারের মৃত্যুতে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার রায়ডাঙা গ্রামে এখনো শোকের ছায়া। সন্তানকে হারিয়ে শোকে হতবিহবল বাবা বরকত উল্লাহও। আবরারের হত্যাকারীদের সাময়িক নয়, স্থায়ী বহিষ্কার চান তারা।

আবরার ফাহাদের বাবা মো. বরকতুল্লাহ বলেন, ১৯ জনকে অস্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে। কিন্তু ভিডিও ফুটেজ দেখে যাদের শনাক্ত করা গেছে তাদের তো স্থায়ী বহিষ্কার করা যেত। সন্তান হত্যার এ ঘটনা নিয়ে কেউ যেন অপপ্রচার না চালায় সেদিকে নজর দেয়ার কথা জানান আবরারের বাবা। সিসিটিভির ফুটেজ দেখে সবাইকে আইনের আওতায় আনার দাবি তাদের।

বরকতুল্লাহ বলেন, আমার ছেলের লাশ নিয়ে কেউ যেন রাজনৈতিক আন্দোলন না ঘটায়।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে আগামীকাল ১৩ অক্টোবর এবং পরশু ১৪ অক্টোবর আন্দোলন শিথিল করার কথা জানানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। শনিবার বেলা আড়াইটায় বুয়েটের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এক সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ১৫তম ব্যাচের মাহমুদুর রহমান সায়েম এ ঘোষণা ঘোষণা দেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ