প্রাথমিক বিদ্যালয় চালুতে যেসব নিয়ম থাকছে ডেনমার্কে

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গোটা পরিস্থিতিতে লকডাউন করা হয়েছে বিশ্বের প্রায় বেশির ভাগ দেশেই। এর ফলে বন্ধ রয়েছে প্রায় সব দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই। সেই পথে ছিল ডেনমার্কের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও। একমাস আগেই খুলে দেওয়া হয়েছে ডেনমার্কের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো। তবে সে দেশে শারীরিত দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি কঠোরভাবে নিশ্চিত করা হচ্ছে।

ডেনমার্কের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে বলেছেন, আমরা এই ভাইরাসের ব্যাপারে খুবই ভয়ে ছিলাম। কিন্তু আবার যখন স্কুল চালু হলো- আমরা নানা ধরনের কাজের মাধ্যমে বাচ্চাদের ভয় কাটানোর চেষ্টা করলাম। তারা আসলেই ভয় পাচ্ছে না।

শিক্ষকরা বলেছেন, শিশুদের মেলামেশার জন্য সংখ্যা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি বিরতির সময়ও যেন অন্যদের সঙ্গে তারা মিশতে না পারে, সেটি দেখা হচ্ছে। যাতায়াতের পথে বাচ্চাদের মধ্যে দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি কঠোরভাবে নজরদারি করা হচ্ছে।

বিদ্যালয়ে থাকা অবস্থায় নির্দিষ্ট করে দেওয়া বাচ্চাদের বাইরে অন্যদের সঙ্গে কেউ যেন যোগাযোগ করতে না পারে, সেই ব্যবস্থা রয়েছে।

শিক্ষকরা বলেন, ২০ জন এক ক্লাসে থাকলে, তাদেরকে আমরা ছোট ছোট দলে ভাগ করে দিচ্ছি। বিরতির সময়ও যেন এক দলের শিশু অন্য দলে মিশতে না পারে সেটি দেখা হচ্ছে। আমরাও দূরত্ব বজায় রেখে পাঠদান করছি। তাদের কাউকে স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকছি।

এদিকে শুরুর দিকে অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে তাদের বাচ্চাদের পাঠাতে ইচ্ছাপ্রকাশ না করলেও দিন গড়ানোর সাথে সাথে এই উপস্থিতি ক্রমেই বাড়ছে। নিয়ম মেনে বিদ্যালয়ে আসতেও আগ্রহ প্রকাশ করছে শিক্ষার্থী।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ