এসএসসি ৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা

  © সংগৃহীত

এসএসসি পাশের দীর্ঘ ২৫ বছর পর এক বনভোজনের মাধ্যমে বশির উদ্দিন আর্দশ স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি-৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়। গত ২৪ জানুয়ারি গাজীপুরের পুবাইলের কৃষ্ণচুড়া পিকনিক স্পটে মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়।

মিলনমেলার মূল আয়োজক ছিলেন বশির উদ্দিন আর্দশ স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি ১৯৯৫ ব্যাচের বন্ধুরা। রাজধানীর প্রাণকেন্দ্র মিরপুর পাইকপাড়ায় অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী এই স্কুলটির এসএসসি ১৯৯৫ ব্যাচের বনভোজনে স্কুলটির শতাধিক প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীসহ তাদের পরিবারের প্রায় তিন শতাধিক সদস্য অংশগ্রহণ করেন।

গত দুই বছরের ব্যবধানে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকার পাশাপাশি এবং বিদেশে অবস্থান করা এসব বন্ধুরা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে একে অপরকে খুঁজে বের করেন। পরবর্তীতেতে কয়েকটি ছোট ছোট কর্মসূচির মাধ্যমে প্রথমে ১০/১৫ জন করে একত্রে মিলিত হন। এরই ধারাবাহিকতায় ফেসবুকে ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ খুলে বশির উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি ৯৫ ব্যাচের প্রায় দুই শতাধিক বন্ধু গ্রুপে সংযুক্ত হন। এভাবেই একে অপরকে খুঁজে বের করে এসএসসি পাসের ২৫ বছর পূর্তিতে বন্ধুত্বের এক মিলনমেলার আয়োজন করা হয়।

ব্যস্ত জীবনে স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হওয়াটা আজকাল তেমন হয়েই ওঠে না। ঠিক সেই কথা মাথায় রেখে স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে যাতে একে অপরের দেখা হয়, ফেসবুকের মাধ্যমে সে সুযোগ সৃষ্টি করে দেন এসএসসি-৯৫ ব্যাচের কয়েকজন বন্ধু। দীর্ঘদিন যোগাযোগ না থাকা বন্ধুরা একে অপরকে পেয়ে অনেকেই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। খোঁজ নেন পরিবার-পরিজনের। অনেকের চেহারা চেনা চেনা লাগলেও পরিচয় জেনেই নিশ্চিত হই তিনিই সেই স্কুল বন্ধু। এভাবে কৃষ্ণচুড়া স্পটটি যেন এক মিলনমেলায় পরিণত হয়। যেখানে এই সাবেক শিক্ষার্থীরা শৈশবের উৎসবে মেতে ওঠেন।

এই দীর্ঘ ২৫ বছরে এসএসসি-৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিভিন্নজন নানা পেশায় চলে গেছেন। এদের মধ্যে অনেকে ডাক্তার, প্রকৌশলী, আইনজীবী, সাংবাদিক, সরকারি কর্মকর্তা, সামরিক ও বেসামরিক অফিসার, কেউবা আবার শিক্ষক কিংবা ব্যবসায়ী। কেউ বা আবার প্রবাসী। কিন্তু বন্ধুত্বের বন্ধনে একসঙ্গে রব চিরজীবনে এ শ্লোগানে সবাই যেন এদিন একাকার হয়ে যান। পরিচয় সবার যেন একটা সেটা হলো আমরা স্কুল বন্ধু।

গত ২৪ জানুয়ারি মিরপুর আনসার ক্যাম্প বাসস্ট্যান্ড থেকে ছয়টি বাস, কয়েকটি প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসে করে বন্ধুরা যাত্রা করে গাজীপুরের কৃষ্ণচূড়া পিকনিক স্পটে। সকাল নয়টায় সেখানে উপস্থিত হয়ে সবাই যেন ২৫ বছরের আগের স্কুল জীবনের স্মতিকাতর হয়ে ওঠেন। এদিন বন্ধুদের মিলনমেলা সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে রাত অবধি চলে। অনুষ্ঠানটি ভলান্টিয়ার সম্মাননা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, র‌্যাফেল ড্র, সুইমিংপুলে সাঁতার কাটার পাশাপাশি গান, নাচ, আবৃত্তি ও ব্যান্ড শো’র সমন্বয়ে এক ব্যতিক্রমী আলোড়নের সৃষ্টি করে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ