অর্থের অভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েও ভর্তি হতে পারছেন না পলি!

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) চান্স পেয়ে ভর্তির সুযোগ পেলেও টাকার অভাবে ভর্তি হতে পারছেন না অদম্য মেধাবী পলি রাণী। তাই টাকার কাছেই হেরে বসতে চলেছে তার ১২ বছরের লালিত স্বপ্ন।

জানা যায়, এবারের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় ৫২৭ তম স্থান লাভ করেন পলি। আগামী সপ্তাহে তার ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হবে। কিন্তু তার এই স্বপ্ন পূরণে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে অর্থ।

ছোটোবেলা থেকেই দুর্দান্ত মেধাবী পলি রাণী লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের কান্তেশ্বরপাড়া গ্রামের দিনমজুর হলধর চন্দ্র রায়ের মেয়ে। দু ভাই বোন তারা। ছোট ভাই স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

জানা গেছে, স্থানীয় একটি কোল্ড স্টোরেজে ট্রাকের মালামাল আনলোড করার কাজ করেন পলির বাবা হলধর রায়। সেখান থেকে প্রতিদিন ২ থেকে ৩শ টাকার আয় দিয়ে চলে তাদের কষ্টের সংসার। জমাজমি বলতে ভিটেমাটি ছাড়া আর কিছু নেই। পলির মা জয়ন্তী রাণীরও অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করেন। পুরবারের দুরবস্থার কারণে ছোটোবেলা থেকেই পলি রাণী মামার বাড়িতে থেকে অনেক কষ্টকরে পড়াশুনা করে আসছেন।

পলি রানী আদিতমারী কেবি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে ২০১৭ সালে মানবিক বিভাগে জিপিএ-৪.৫৫ পেয়ে এসএসসি পান। পরে একই কলেজ থেকে ২০১৯ সালে জিপিএ-৪.৫৮ পেয়ে এইচএসসি পাস করেন।

পলির বাবা দিনমজুর হলধার চন্দ্র রায় বলেন, ‘ভাই মুই (আমি) কামলা (দিনমজুর) মানুষ, মোর ছাওয়া (সন্তান) কি টাকার কাছত (কাছে) হারি যাইবে?’

মেয়ের স্বপ্ন পূরণের জন্য সমাজের বিত্তবানদের সহয়তা কামনা করেন এই বাবা।

পলি রানী বলেন, পাড়াশুনা করে ভবিষ্যতে আমি ম্যাজিস্ট্রেট হতে চাই। কিন্তু স্বপ্ন পূরণে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে অর্থ।

মেধাবী পলির উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে সমাজের দানশীল ব্যক্তিরা এগিয়ে আসতে পারেন। যোগাযোগ করতে পারেন পলি রাণীর মা জয়ন্তী রাণীর মোবাইল নম্বর-০১৭৫০-২৪৫৪৮২ এবং তার মামা নিন্তনন্দের ০১৭২১-৭৪০৫৬৫ নম্বরে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ