করোনার প্রতিষেধক গবেষণায় টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিচ্ছে পার্পল প্যাচ

‘পার্পল প্যাচ’ এর প্রধান প্রকৌশলী ফয়সাল  © টিডিসি ফটো

করোনার প্রতিষেধক গবেষণায় টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিচ্ছে বাংলাদেশের একমাত্র এ্যাড নেটওয়ার্ক ‘পার্পল প্যাচ’। প্রতিষ্ঠানটির অব্যবহৃত কম্পিউটার রিসোর্সের সাথে গবেষণার সময় টেকনিক্যাল ত্রুটি সমাধানেও কাজ করবে প্রতিষ্ঠানটি।

বিভিন্ন রকমের জটিল রোগের জীবনতত্ব নিয়ে কাজ করে ফোল্ডিং হোম নামের আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান। বিশ্বব্যাপী রোগের তথ্য বিশ্লেষণ করে তা গ্রাফিক আকারে দেখিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। এসব গবেষণা জীববিজ্ঞানীদের রোগ সম্পর্কে ধারণা দিতে এবং এর প্রতিষেধক তৈরিতে সাহায্য করে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান প্রকৌশলী হোসাইন মোহাম্মদ ফয়সাল জানিয়েছেন, প্রতিদিন প্রায় দেড় কোটি অ্যাড রিকোয়েস্ট হ্যান্ডেল করতে হয়। তারপরেও আমাদের বেশিরভাগ কম্পিউটার রিসোর্স ব্যবহার হয়না। আমাদের অব্যবহৃত এসব রিসোর্স করোনার প্রতিষেধক গবেষণায় কাজে লাগাতে পারলে গবেষণা কাজ অনেক দ্রুত আগাবে। একইসঙ্গে গবেষণায় যত ধরণের টেকনিক্যাল ইরর দেখা যাবে সেগুলো ম্যানুয়ালি সমাধানেও কাজ করবো আমরা। এক্ষেত্রে আমাদের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স আর অ্যাড নেটওয়ার্ক নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা ওগুলো কাজে আসবে।

তিনি বলেন, কম্পিউটার রিসোর্সের আর্থিক মূল্য মাসে প্রায় ৬৭৩ ডলার। আগামী ১০ এপ্রিলের মধ্যে এ গবেষণা সম্ভাব্য সফলতার মাইলফলক ধরে কাজ করছে গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তারা ২.৩৯ গিগাহার্টস এর ২০টি সিপিউ কোর, ৪.৫১ গিগাহার্টস এর ৮টি হাইপারফর্মসের সিপিউ কোর, ১৮০০ মেগাহার্টসের ৮৯৬টি সিইউডিএ কোর, ৭২ জিবি ডিডি৪ র‌্যাম, ৪ জিবি ডিডিআর ৫ ভির‌্যাম দিয়ে গবেষণায় সাহায্য করবে।

গবেষণা দলের সদস্য হিসেবে হোসাইন মোহাম্মদ ফয়সাল জানান, কভিড-১৯ এর গ্রাফিক ইমেজ তৈরি করে সেটি মানবদেহে কিভাবে কাজ করে তার কম্পিউটারভিত্তিক জীবন্ত একটা রুপ দিতে কাজ করছেন। 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ