সিটি ইউসেপ এডুকেশন প্রোগ্রামের সনদ বিতরণ

যৌথ প্রচেষ্টায় তৈরী হবে দক্ষ ও সম্ভাবনাময়ী তরুণ সমাজ

“দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে নারী জনবলের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমি বিশ্বাস করি, নারীর ক্ষমতায়ন ও যুব কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে সকলের এই যৌথ প্রচেষ্টা দক্ষ ও সম্ভাবনাময়ী তরুণ সমাজ তৈরী করবে”। বলছিলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গর্ভনর এবং বাংলাদেশ ফিনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের প্রধান আবু হেনা মোহাম্মদ রাজী হাসান।

রোববার সিটিব্যাংক ও ইউসেপ বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে সিটি ইউসেপ টেকনিক্যাল এডুকেশন প্রোগ্রামের শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিজেএমইএ’এর প্রেসিডেন্ট রুবানা হক, সিটিব্যাংকের কান্ট্রি অফিসার এন রাজাশেকারাণ, ইউসেপ বাংলাদেশ’র পরিচালনা পরিষদের চেয়ারপারসন পারভীন মাহমুদ, ইউসেপ বাংলাদেশ’র নির্বাহী পরিচালক তাহসিনাহ আহমেদ।

সিটি ফাউন্ডেশন সিটি গ্রূপের একটি মানবকল্যাণমুখী সংস্থা। ২০১৪ সাল থেকে সিটি ফাউন্ডেশন ইউসেপ বাংলাদেশ-এর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে সিটি ইউসেপ টেকনিক্যাল এডুকেশন পরিচালনা করছে। এ পর্যন্ত ১৭ থেকে ২৫ বছরের কম বয়সী ১২০০ জনেরও অধিক সুবিধাবঞ্চিত তরুণ নারী এই কর্মসূচির অধীনে ঢাকা, গাজীপুর, যাত্রাবাড়ি এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছে।

অনুষ্ঠানে বিজেএমইএ’এর প্রেসিডেন্ট রুবানা হক বলেন, “এখানে একটি বড় চ্যালেঞ্জ হলো, সুবিধাবঞ্চিত পরিবার থেকে আসা মেয়েদের কারিগরি শিক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করা। এক্ষেত্রে তাদের যথাযথ প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়ন অনেক অর্থপূর্ণ হবে। এটা এ মুহূর্তের জন্য খুবই জরুরি। এজন্য আমি মেয়েদের অভিনন্দন জানাচ্ছি এবং তাদের অব্যাহত সাফল্য কামনা করছি।’

সিটি ব্যাংকের কান্ট্রি অফিসার এন রাজাশেকারাণ বলেন, “সিটি ফাউন্ডেশন আজকের তরুণসমাজকে সবচেয়ে বেশি কর্মক্ষম প্রজন্ম হিসাবে প্রস্তুত করে তুলতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। এই তরুণ নারীদের সাফল্য আমাদের সমাজকে সমৃদ্ধ করবে এবং অর্থনীতির চালিকাশক্তি হিসাবে কাজ করবে। দেশের তরুণ সমাজের দক্ষতা বিকাশের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য।

অনুষ্ঠানে ইউসেপ বাংলাদেশ’র পরিচালনা পরিষদের চেয়ারপারসন পারভীন মাহমুদ বলেন, “সিটিব্যাংক-ইউসেপ কারিগরি শিক্ষা কর্মসূচি অনগ্রর তরুণীদের সামাজিক অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন করতে সরাসরি সমর্থন করে। সিটি-ইউসেপ কারিগরি শিক্ষা কর্মসূচির অধীনে টিভিইটি এবং দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করার পর তারা বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় যোগদান করছে, অর্থ উপার্জন করছে এবং তাদের পরিবারকে সহায়তা করছে। আমি আশা করি, সিটিব্যাংক-ইউসেপ কারিগরি শিক্ষা কর্মসূচি অণগ্রসর তরুণীদের প্রতি অবিরাম সমর্থন প্রদান করে যাবে।“

এছাড়া ইউসেপ বাংলাদেশ’র নির্বাহী পরিচালক তাহসিনাহ আহমেদ বলেন, “আজকের সনদপত্র প্রদান অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত এবং উৎসাহবোধ করছি। এই কার্যক্রম নারী এবং নারী সমাজের অগ্রগতির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে, এটা নারীর ক্ষমতায়নের জন্য জরুরি। আমি কোর্স সম্পন্নকারী প্রত্যেককে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। একই সঙ্গে প্রত্যাশা করি, তারা প্রত্যেকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অর্জিত জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে কর্মজীবনে সাফল্য লাভ করতে অনুপ্রাণিত হবে।“ তিনি ইউসেপ বাংলাদেশ-এর পক্ষ থেকে সিটি ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ।

 

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ