বিদেশ থেকে টাকা পাঠালেই ২% প্রণোদনা

ট্যাক্স বরাদ্দ থাকছে ৩ হাজার ৬০ কোটি টাকা

বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠাতে প্রণোদনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রথমবারের মত বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রবাসীরা দুই শতাংশ হারে প্রণোদনা পাবেন। এ বাবদ আগামী অর্থবছরের বাজেটে তিন হাজার ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এর ফলে বৈধ চ্যানেলে রেমিট্যান্স উল্লেখযোগ্যহারে বাড়বে। একইসঙ্গে হুন্ডি ব্যবসা নিরুৎসাহিত হবে বলে বাজেট বক্তৃতায় আশা প্রকাশ করা হয়েছে।

এদিকে প্রবাসী বাাংলাদেশি কর্মীদের জন্য বীমা সুবিধা না থাকায় দুর্ঘটনা ও নানাবিধ কারণে তারা ও তাদের পরিবার প্রায়শই আর্থিক ঝুঁকির সম্মুখিন হন। প্রবাসী কর্মীদের বিমা সুবিধার আওতায় নিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাদি গ্রহণ করা হবে বলে বাজেটে প্রস্তাব করা হয়েছে।

জানা গেছে, বর্তমানে রপ্তানিযোগ্য বিভিন্ন পণ্যে একাধিক হারে প্রণোদনা দেওয়া হয়। এর বাইরে প্রথমবারের মতো সেবা খাত হিসেবে প্রবাসী আয়ে একই সুবিধা দেওয়া হবে। যারা বৈধ পথে তথা ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স পাঠাবেন, শুধু তারাই প্রণোদনা পাবেন। মূলত ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিট্যান্স পাঠানো উৎসাহিত করতে প্রবাসীদের এ সুবিধা দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, গত অর্থবছরে প্রবাসীরা মোট রেমিট্যান্স পাঠান প্রায় দেড় হাজার কোটি ডলার অর্থাৎ ১৫ বিলিয়ন ডলার। যা স্থানীয় মুদ্রায় এক লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকা। ধারণা করা হয়, সমপরিমাণ রেমিট্যান্স ব্যাংকিং চ্যানেলের বাইরে অবৈধ পন্থায় বাংলাদেশে এসেছে। বিভিন্ন দেশে কতজন বাংলাদেশি কাজ করছেন, তার সঠিক রেকর্ড সরকারের কাছে নেই। তবে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়সহ সংশ্নিষ্ট খাতের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই সংখ্যা এক কোটির ওপরে। জানা যায়, এদের বড় একটি অংশ অবৈধ পথে দেশে রেমিট্যান্স পাঠান।

রেমিট্যান্সের উপর ২ শতাংশহারে প্রণোদনা দেওয়ার কথা প্রস্তাব করা হলেও কোন নীতিমালায় তা দেওয়া হবে সেটা পরে ঠিক করা হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ