করোনা সংকট

৭ কলেজের অনলাইন ক্লাস চলছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায়

  © লোগো

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে চালিয়ে নিচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ও চলতি মাসের শুরু থেকে পুরোদমে অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করেছে। তবে অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজে অনলাইন কার্যক্রমের ব্যাপারে কোন নির্দেশনা দেয়নি ঢাবি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসরণ করে অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের অনলাইন কার্যক্রম চলছে করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই।

অভিযোগ রয়েছে, সাত কলেজ ঢাবির অধিভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হলেও করোনাভাইরাসের শুরু থেকে এসব কলেজের প্রতি কোন লিখিত নির্দেশনা দেয়নি কর্তৃপক্ষ। ঢাবি থেকে কোন নির্দেশনা না পাওয়ার কারণে করোনা শুরু থেকে শিক্ষা অধিদপ্তর এবং মন্ত্রণালয় যেভাবে নির্দেশনা দিচ্ছেন সেভাবে এগুচ্ছে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

তবে এ অভিযোগের ব্যাপারে সরকারি তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আশরাফ হোসেন বলেন, সাত কলেজ ঢাবির নির্দেশনায় চলছে না কথাটি ঠিক নয়। একাডেমিকভাবে সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাভুক্ত। তবে করোনা পরিস্থিতিতে যেখানে ঢাবি নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিতে এতো সময় নিয়েছে সেখানে সাত কলেজকে কীভাবে সিদ্ধান্ত দেবে?

তিনি বলেন, আমরা নিজেরা তো অনলাইন ক্লাস অনেক আগ থেকেই শুরু করেছি। আমাদের প্রত্যেকটা ডিপার্টমেন্টে অনলাইন ক্লাস চলছে। আমরা ঢাবির নির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করিনি। আমরা আমাদের মত করে শুরু থেকে অধিদপ্তর এবং মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় অনলাইন ক্লাস শুরু করেছি। ঢাবি এখন শুরু করেছে; তারপর হয়তো পর্যায়ক্রমে আমাদেরকে সিদ্ধান্ত জানাবে।

দেখুন: জুলাই থেকে অনলাইন ক্লাসে যাচ্ছে ঢাবি

ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, আমাদের সরকারি কলেজ হিসাবে আমরা সরাসরি মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করি। তবে আমাদের পরীক্ষা আর সিলেবাসগুলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিয়ে থাকে। করোনায় ঢাবি থেকে আমাদের নির্দেশনা পাওয়ার তেমন কিছু নেই। আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের কল্যাণে করোনার প্রথম থেকে অনলাইন ক্লাস শুরু করেছি। তবে আমাদের কার্যক্রমের সঙ্গে ঢাবির নির্দেশনা পাওয়া না পাওয়াও সাংঘর্ষিক নয়।

অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের সমন্বয়ক (ফোকাল পয়েন্ট) ও কবি নজরুল সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনলাইন ক্লাসের বিষয়ে আমাকে মৌখিকভাবে একটা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। তবে অফিসিয়ালি এখনো পর্যন্ত কিছু বলা হয়নি। সাত কলেজের সাবেক সমন্বয়কারী অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত স্যার জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইন ক্লাস শুরুর বিষয়ে পরিকল্পনা করছে, আপনারাও শুরু করে দেন।

তিনি বলেন, এখানে অসুবিধা হওয়ার কোন কারণ নেই। যেহেতু অনলাইন ক্লাস অনেক ব্যয়বহুল এবং ঢাবি তার শিক্ষার্থীদেরও ম্যানেজ করতে হয় সেজন্য এ ধরনের বিচ্যুতি হতে পারে। তবে আমরা আমাদের মতো করে চালিয়ে নিচ্ছি।

নিজস্ব উদ্যোগে সাত কলেজে কেমন অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম চলছে এ বিষয়ে একাধিক শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেছে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস। তারা জানিয়েছেন, অনলাইন ক্লাসে তো রিয়েলিটি খুঁজে পাবো না। তবে শিক্ষাকার্যক্রম থেকে একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া থেকে এসব অনলাইন ক্লাস উপকারী হচ্ছে। তবে কিছু কিছু শিক্ষার্থী তাদের ইন্টারনেট সংযোগ এবং প্রয়োজনীয় উপকরণের অভাব রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন।

দেখুন: অনলাইন ক্লাস শুরু হচ্ছে সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে, হবে না পরীক্ষা

ঢাবির ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন ও সাত কলেজের নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ আব্দুল মঈন দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, নতুন কোন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য বেশকিছু সুযোগ-সুবিধার প্রয়োজন রয়েছে। সেখানে আমাদের নিজেদেও অনেক সীমাবদ্ধতা আছে। সাত কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়ার পর থেকে অনেক ভালো করছে। করোনা পরিস্থিতিতেও সাত কলেজ নিয়ে আমাদের চিন্তাভাবনা আছে। আমরাও অনলাইন ক্লাস শুরু করেছি, সাত কলেজেও পর্যায়ক্রমে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

তবে ঢাবির নির্দেশনার আগেই সাত কলেজের বিভিন্ন কলেজ অনলাইন ক্লাস শুরু করে দিয়েছে এ বিষয়ে অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ আব্দুল মঈনকে জানানো হলে তিনি বলেন, যারা শুরু করতে পেরেছে তাদের উদ্যোগ এবং কর্মপ্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানাচ্ছি। তারা আরও কীভাবে সহজে ক্লাস নিতে পারবেন এ বিষয়ে পরবর্তীতে দিকদির্শেনা দেওয়া হবে। আর যারা এখনো শুরু করতে পারেননি তাদের বিষয়গুলো আমাদের নজরে আছে। সেগুলো নিয়েও আমরা কাজ করছি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ