সীমিত পরিসরে খুলছে ঢাবির হল, পরীক্ষার ফল প্রকাশের প্রস্তুতি

  © ফাইল ফটো

মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আগামী ৩১ মে থেকে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও অফিস-আদালত খুলছে। যদিও স্কুল-কলেজসহ সব ধরণের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ১৫ জুন পর্যন্ত। তবে ৩১ মে থেকে সীমিত পরিসরে প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আজ শুক্রবার (২৯ মে) এ বিষয়ে অফিস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয়ের হল অফিসও খুলে দেয়া হচ্ছে সীমিত পরিসরে। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য এখনি হলে যাওয়ার সুযোগ থাকছে না।

অফিস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আবাসিক হলসমূহের সার্বিক পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ও নিজস্ব স্থাপনা রক্ষণাবেক্ষনে সংশ্লিষ্টদের সহায়তা দেয়ার প্রয়োজনে অতি সীমিত পরিসরে অফিস খোলা রাখবেন। তবে মূল গেট সার্বক্ষণিক বন্ধ থাকবে।

এছাড়া অন্যান্য জরুরি কাজের মধ্যে ইতোমধ্যে অনুষ্ঠিত পরীক্ষা সমূহের ফলাফল চূড়ান্তকরণ ও তা প্রকাশের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ ও চলাচলে বিদ্যমান সকল ব্যবস্থা ও বিধি-নিষেধ বলবৎ থাকবে।

এতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল অফিসসমূহ পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে ক্লাস-পরীক্ষা কবে থেকে শুরু হবে- সে ব্যাপারে স্পষ্ট কিছু জানায়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। করোনা পরস্থিতি বিবেচনা করে এ ব্যাপারে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বৃহস্পতিবার দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, ‘কঠোর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আমরা একটি নীতিমালা তৈরি করেছি। সেই নীতিমালার আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হবে। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল অফিসসমূহের কার্যক্রম আগামী ৩১ মে থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত কাজ চলমান থাকবে।’

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ন্যূনতম সংখ্যক জনবল নিয়ে অফিস কার্যক্রম চালু করতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এজন্য কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী গণপরিবহন ব্যবহার করতে পারবে না। এছাড়া তাদের সমন্বয়ে ১৪ দিনের রোস্টার তৈরি করতে হবে। পাশাপাশি অফিস প্রধানের নির্দেশে প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব পরিবহন ব্যবহার করে অফিস করতে হবে।

অফিস খোলার পূর্বে সংশ্লিষ্ট ভবন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং অফিসকে জীবাণুমুক্ত করতে হবে উল্লেখ করে সূত্রটি আরো জানায়, প্রত্যেক অফিস ভবনের প্রবেশপথে তাপমাত্রা পরিমাপক রাখতে বলা হয়েছে। এছাড়া প্রভিডেন্ট ফান্ড, পেনশন, বেনাভোলেন্ট ফান্ড ইত্যাদির জন্য অফিসে না এসে হিসাব পরিচালকের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ