এক যুগ পর ঢাবির আবাসিক হল বন্ধ হচ্ছে কাল

  © টিডিসি ফটো

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের পাশাপাশি আবাসিক হল-হোস্টেলও বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আবাসিক শিক্ষার্থীদের আগামীকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে হল-হোস্টোল ছাড়তে বলা হয়েছে। এ সময়ের পরে কোন শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান করতে পারবে না।

আর হল-হোস্টেল প্রশাসনকে সার্বিক পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ ডেঙ্গু প্রতিরোধমূলক কর্মসূচি গ্রহণ করার জন্য বলা হয়েছে। আজ দুপুরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

সভায় চিকিৎসা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. শাহরিয়ার নবীকে আহ্বায়ক করে একটি ৫ সদস্য বিশিষ্ট ‘করোনাভাইরাস রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন কমিটি’ গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন- ফার্মেসী অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এস এম আব্দুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সদস্য ও অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান, সহকারী প্রক্টর ড. মো. আব্দুল মুহিত এবং প্রধান মেডিকেল অফিসার ডা. সারওয়ার জাহান মুত্তাফী।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক কার্যক্রম ও প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হলেও আবাসিক হলগুলো খোলা রাখা হতো। সর্বশেষ হল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল ২০০৭ সালের ২১ আগস্ট কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সেনাবাহিনী ও শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনার পর। ফলে এক যুগ পর আবাসিক হল বন্ধ হচ্ছে আগামীকাল।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের সময়সীমা আরও তিনদিন বেড়েছে। সিন্ডিকেট সভায় আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি বর্ধিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ছুটিকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। বহিরাগত কাউকে ক্যাম্পাসে প্রবেশ ও অবস্থান না করার জন্যও বলা হয়েছে। এর আগে গত সোমবার গ্রীষ্মের ছুটি এগিয়ে এনে ১৭ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষাণা করা হয়েছিল।

সিন্ডিকেট সভায় নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা এবং জাতির বৃহত্তর স্বার্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের নিজ নিজ বাড়ী/বাসায় অবস্থান করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ