ঢাবিতে ছাত্রদলের দুপক্ষের হাতাহাতি (ভিডিও)

  © টিডিসি ফটো

স্লোগান দেওয়া, ‘না’ দেওয়া নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের দুই পক্ষের মধ্যে দুই দফা হাতাহাতি, তর্ক-বিতর্কের ঘটনা ঘটেছে। আজ বৃস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর বারোটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে এই ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের পক্ষ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের পক্ষ প্রথমে তর্ক-বিতর্ক পরে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে।

জানা যায়, মধুর ক্যান্টিন থেকে আসার সময় সাধারণ সম্পাদক শ্যামলের পক্ষ স্লোগান দিতে থাকে। আহ্বায়ক রাকিব তাদের স্লোগান বন্ধ করতে বলেন। কিন্তু রাকিবের কথা তাঁরা না শুনে স্লোগান দিতে থাকে। উভয় পক্ষ ১২ টার দিকে টিএসসিতে আসে। কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনও সেখানে ছিলেন। তখন স্লোগান ‘কেন বন্ধ করা হলো না’ তা রাকিব শ্যামলের কাছে জানতে চায়। শ্যামল কোনো জবাব না দিলে রাকিব শ্যামলে গালি দেন।

পরে তারেক হাসান মামুন কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। তখন কেন্দ্রীয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদক বিষয়টি পরে দেখবেন বলে জানান। তার কিছুক্ষণ পরে, রাকিবুল হাসান রাকিব কেন্দ্রীয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের কাছে তারেক হাসান মাসুদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

অভিযোগ করার সময়ে কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তবিবুর রহমান সাগর বলেন, সভাপতি সাধারণ সম্পাদক বলেছে বিষয়টি পরে দেখবে। তখন বিশ্ববিদ্যালয় আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন আমি বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদক সাথে কথা বলছি, ‘তুই বেটা থাম’। পরে এ নিয়ে সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের অনুসারী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাকিবুল হাসান রাকিবের অনুসারীদের মধ্যে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্রদল নেতা জানান, সামান্য বিষয় নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব কেন্দ্রীয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের সাথে খুবই খারাপ আচরণ করেছেন।

এ বিষয়ে জিয়া হল সংসদ নির্বাচনের ভিপি প্রার্থী তারেক হাসান মামুন কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস কে বলেন, এটা আমাদের ইন্টার্নাল বিষয়। সামান্য কথার কাটাকাটি হয়েছে। তেমন কিছু নয়। মেরে ফেলার হুমকি বিষয়ে তিনি বলেন, আমি কাউকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়নি।

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল কে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ