০৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:০০

এজন্যই ঢাবি প্রক্টর তাকে লাথি মেরেছিলেন: নুর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হকের নুরের পদত্যাগ দাবিতে তার কক্ষে তালা ঝুলিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের একাংশ। এর আগে তারা ক্যাম্পাসে মানববন্ধনের আয়োজন করে।

বুধবার দুপুরে ডাকসু ভবনের সামনে অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে এ মানববন্ধন হয়। সম্প্রতি নুরের ফাঁস হওয়া একটি ফোনালাপের জেরে এসব কর্মসূচী পালন করে সংগঠনটি। পরে তারা দল বেঁধে ভিপির কক্ষে তালা দেয়। এদিকে হামলার বিষয় নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুকে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নুর। বলেছেন, তথাকথিত সংগঠনের কর্মীরা এই হামলা চালিয়েছেন।

নুর লিখেন, ‘‘আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের দালালি করা তথাকথিত সংগঠন ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ নামক ধান্দাবাজ, সন্ত্রাসীরা ডাকসুতে গিয়ে ভিপির রুমে তালা লাগায় কাদের ইশারায় বুঝছেন?

এই তথাকথিত মঞ্চের আহ্বায়ক ঢাবির অতি উৎসাহী এক শিক্ষক আ.ক.ম জামাল। যাকে টিএসসিতে আওয়ামীপন্থী নীল দলের শিক্ষকদের মিটিংয়ে এই স্বভাবের কারণে ঢাবি প্রক্টর লাথিও মেরেছিল।’’

তথ্যমতে, ২০১৭ সালের ৩ ডিসেম্বর টিএসসি ক্যাফেটেরিয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থক শিক্ষকদের নীল দলের সভায় সহকর্মীদের আঘাতে আ খ ম জামাল উদ্দিন নামে এক শিক্ষক আহত হন। সে সময় তিনি (জামলা) অভিযোগ করেন, প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী ও তাদের পক্ষের আরও দুই শিক্ষক এই হামলা করেছেন, আঘাতে তার নাক দিয়ে রক্ত ঝরেছে। এ ঘটনায় প্রক্টর রব্বানীকে পদচ্যুত করার দাবি জানিয়ে আন্দোলনের হুমকি দিয়েছিলেন নীল দলের নেতারা।

প্রসঙ্গত, ক্যাম্পাসে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ওই অধ্যাপক আ খ ম জামাল উদ্দিন সাবেক উপাচার্যের সমর্থক হিসেবে পরিচিত। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ সংগঠনটির নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন।