অপরাধ করলেও ছাত্রলীগকে অবাধে ছাড় দেয়া হচ্ছে: নুরুল হক

  © টিডিসি ফটো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্যবিরোধী আন্দোলনকারীদেরে উপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পূর্বঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হকের নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

মিছিলটি রাজু ভাস্কর্য থেকে শুরু হয় দুপুর ১টার সময়। পরে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে সমাবেশের মাধ্যমে তা শেষ হয়। এর পুলিশের বাধায় বিক্ষোভ মিছিল করতে এক ঘন্টা  বিলম্ব হয়।

কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন, ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ ফারুক হোসেন, বিনি আমিন মোল্লা এবং প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাসহ সাধারণ শিক্ষার্থী।

এসময় ‘হামলা করে আন্দোলন, বন্ধ করা যাবেনা’, ‘হুমকি দিয়ে আন্দোলন বন্ধ করা যাবেনা’, ‘শিক্ষা-সন্ত্রাস একসাথে চলেনা’ স্লোগান দিতে দিতে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করেন বিক্ষোভকারীরা।

সমাবেশে অপরাধ করলেও আওয়ামী লীগ নেতারা ছাত্রলীগকে অবাধে ছাড় দিচ্ছে অভিযোগ করে নুরুল হক নুর বলেন, ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানালে সেখানে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। পুলিশ অন্যায়ভাবে হয়রানি করেছে। আমরা তার নিন্দা জানিয়েছি। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করে যাবেন বলেও জানান তিনি।

ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন ক্ষমতাসীন দলকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, ‘গণ অভ্যুত্থানের নাটক করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করা হয়েছে। আশা করেছিলাম ছাত্রলীগ সংযত হবে, কিন্তু হয়নি। সরকারকে সন্ত্রাসী বাহিনী রক্ষা করতে পারবে না।’

ফারুক হোসেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যের উল্লেখ করে বলেন, ‘তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে টেলিস্কোপ দিয়ে দেখলেও জামাত-শিবির পাওয়া যাবেনা। তাহলে শিবির ট্যাগ দিয়ে কিভাবে ছাত্রদের পিটিয়ে হত্যা করে? জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি পা চাটা গোলামে পরিণত হয়েছে। তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় আজ বেহায়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছে।’

বিনি আমিন মোল্লা বলেন, ‘ছাত্রলীগ একটি মেশিনে পরিনত হয়েছে, যেখানে শিক্ষার্থীরা প্রবেশ করলে ছাত্ররা পরিপূর্ণ গোন্ডা,সন্ত্রাসে পরিনত হয়।’

পরবর্তী কর্মসূচী জানিয়ে দিবে বলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সংঘবদ্ধভাবে অন্যায়ের প্রতিবাদ জানানোর আহবান জানিয়ে সমাবেশ শেষ করেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ