‘ছাত্রলীগ কোন সংগঠনের পর্যায়ে পড়ে না’

  © টিডিসি ফটো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দুর্নীতির প্রতিবাদে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের বর্বর হামলার প্রতিবাদে মশাল মিছিল করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (০৫ নভেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশ থেকে মশাল মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিণ করে আবার রাজু ভাস্কর্য এসে শেষ হয়।

মশাল মিছিলে অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর, সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহবায়ক রাশেদ খাঁন, মশিউর রহমান, মোঃ আতাউল্লাহ এবং অন্যান্য ছাত্রসংগঠেনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পড়ুন: ছাত্রলীগের লাথিতে মাটিতে শুয়ে কাতরাচ্ছেন, ভিডিও ভাইরাল

এ সময় বিক্ষোভকারীরা, ‘জাবিতে হামলা কেন, প্রশাসন জবাব দাও’, ‘জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে’, ‘আন্দোলনে হামলা কেন, প্রশাসন জবাব চাই’, ‘হামলা করে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না’, ‘এ্যাকশন এ্যাকশন ডাইরেক্ট এ্যাকশন, ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ডাইরেক্ট একশন’, ‘আমার ভাই আহত কেন, প্রশাসন জবাব চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

এ সময় তারা তিন দফা দাবি জানান। দাবিগুলো হলো- নৈতিক স্খলনের জন্য জাবির ভিসিকে পদত্যাগ করতে হবে, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের অতিদ্রুত বিচারের আওতায় আনতে হবে, তৃতীয় দাবী হল, অগণতান্ত্রিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে।

মশাল মিছিল পূর্ববর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি নূরুল হক নুর বলেন, ছাত্রলীগ আজ সন্ত্রাসের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। আমরা দেখেছি জাবিতে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা কীভাবে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপরে হামলা চালিয়েছে। এই ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে হামলা চালিয়েছে।

পড়ুন: ছাত্রলীগের হামলা থেকে রেহাই পাননি শিক্ষক, ছাত্রী, সাংবাদিকরাও (ভিডিও)

তিনি আরো বলেন, আজ দু:খের বিষয় হলো, যে ভিসি দুর্নীতির সাথে যুক্ত। ছাত্রলীগ সে ভিসির লাটিয়াল বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। আপনারা যদি ছাত্রলীগের কয়েক বছরের কার্যক্রম লক্ষ্য করেন তাহলে দেখবেন ছাত্রলীগ কোন সংগঠনের পর্যায়ে পড়ে না।

এসময় তিনি ভিসর পদত্যাগ ও হামলাকারীদের শান্তির দাবি জানিয়ে বলেন, আমরা দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত এ ভিসির পদত্যাগ চাই। একই সাথে যারা হামলার সাথে অভিযুক্ত তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। যদি শাস্তির আওতায় না আনা হয় তাহলে কোন ছাড় দেওয়া হবে না।

পড়ুন: চান্স হয়নি, মানবিকতায় ভর্তি হচ্ছেন তিন্নি!

এসময় ছাত্র ফ্রন্টের ঢাবি সভাপতি সালমান বলেন, আপনারা জানেন জাহাঙ্গীরনগরের উন্নয়ন প্রকল্পের দুর্নীতির সাথে ভিসি ও তার পরিবার যুক্ত। এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু তাদের যৌক্তিক আন্দোলনে ছাত্রলীগ নেতা রানার নেতৃত্বে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। অথচ ভিসি ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাই আমরা ভিসির পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছি সাথে হামলার সাথে যারা জড়িত তাদের শাস্তরি আওতায় আনার জন্য দাবি জানাচ্ছি।

আরো পড়ুন: 

মুক্তিযোদ্ধা খোকার শেষ ইচ্ছাটাও পূরণ হলো না

ঢাবি ছাত্র খোকা যেভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠে


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ