ঢাবিতে ছাত্রদলকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করা, প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেয়া এবং মহান মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননা করার অপরাধে ছাত্রদলকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। আজ রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তারা এ ঘোষণা দেন।

সাংবাদিক সম্মলনে লিখিত বক্তেব্যে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুন বলেন, ‘দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু যখন দেশ গঠনের জন্য নিরলসভাবে কাজ শুরু করেছিলেন ঠিক সেই মূহুর্তে একাত্তরের পরাজিত শক্তির দোসররা ষড়যন্ত্র শুরু করে। নির্মমভাবে জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করে।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধ সামরিক শাসক জিয়ার সৃষ্টি বিএনপি-ছাত্রদল এবং স্বাধীনতা বিরোধী জামাত-শিবিরকে আলাদা করে দেখার কোন সুযোগ নেই। এরা একই মুদ্রার এপিঠ এবং ওপিঠ। এদের নীতি এবং আদর্শ এক ও অভিন্ন। ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের ফেসবুক স্ট্যাটাস প্রমাণ করে এরা কখনোই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে না। এরা পাকিস্তানি ভাবধারায় বিশ্বাসী।’

ছাত্রদলের এদেশে রাজনীতি করার কোন সুযোগ নেই উল্লেখ করে এত বলা হয়, ‘বাংলাদেশে রাজনীতি করতে চাইলে সেই দলকে অবশ্যই বঙ্গবন্ধুকে জাতির পিতা মেনে রাজনীতি করতে হবে। কারণ যাঁর জন্য আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি তাঁকে অস্বীকার করে কেউ রাজনীতি করলে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ তা মেনে নেবে না। নির্বাচন কমিশনকে অবশ্যই সেসব রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিল করতে হবে।’

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাহিরে কোন রাজনৈতিক দলকে বাংলাদেশের মাটিতে রাজনীতি করতে দিবে না মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘জামাত-শিবির, বিএনপি-ছাত্রদল বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কখনোই ধারণ করে না। সম্প্রতি বিএনপি নেতা দুদুর বক্তব্য এবং ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শ্যামলের ফেইসবুক মন্তব্য একই সূত্রে গাঁথা। শ্যামলের ফেসবুক মন্তব্য বাংলাদেশের সংবিধান পরিপন্থী।’

তিনি বলেন, ‘তারা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যা করে ক্ষমতা দখলের ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সচেতন ছাত্রসমাজ তা কখনোই হতে দেবে না। স্বাধীনতা বিরোধী দুদু-শ্যামলদের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।’

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে শিগগিরই উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি দেবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ বলে জানানো হয়। দাবি না মানলে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলবে হুশিয়ারি দিয়ে ক্যাম্পাসে ছাত্রদলকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন তিনি।

এছাড়া জাতির কাছে এ ধরণের বক্তব্যের জন্য শ্যামলকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান। অন্যথায় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শ্যামলকে যেখানেই পাওয়া যাবে সেখানেই গণধোলাই দেবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের দাবিসমূহ হল-

১. বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেয়া এবং মহান মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননা করার অপরাধে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শ্যামলকে অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে;

২. বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননাকারী জামাত-বিএনপি-শিবির-ছাত্রদলের রাজনীতি সারা বাংলাদেশে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করতে হবে।

৩. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী সাম্প্রদায়িক প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠী ছাত্রদলের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তুর্য প্রমুখ।

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ