ঢাবিতে কালো পতাকা মিছিল, ভারতের সঙ্গে চুক্তি বাতিলের দাবি

  © টিডিসি ফটো

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে এবং খুনিদের বিচার দাবিতে কালো পতাকা মিছিল করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এসময় সম্প্রতি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার চুক্তি বাতিলের দাবিতে স্লোগান দেন তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশ থেকে মিছিলটি শুরু হয়। পরে ভিসি চত্বর, ব্রিটিশ কাউন্সিলের সামনে দিয়ে পলাশীর মোড় হয়ে বুয়েট ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করেন তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর, সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম-আহবায়ক ফারুক হোসেন, মুঁহাম্মদ রাশেদ খান, ছাত্র ফেডারেশন সভাপতি আবু রায়হান খানসহ বিভিন্ন প্রগতিশীল সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মাথায় কালো কাপড় বেঁধে কালো পতাকা মিছিলে অংশ নেন।

মিছিলটি বুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে গেলে সেখানে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর বুয়েট শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানান এবং তাদের পাশে থাকার ঘোষণা দেন। এছাড়া তাদের কোন ভয় নেই বলেও আশ্বাস দেন। এসময় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এবং এদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন ভিপি নুর।

এসময় শিক্ষার্থীরা, ‘ঢাকা না দিল্লি? ক্ষমতা না জনতা?’, ‘ছাত্রলীগের আস্তানা ভেঙ্গে দাও গুড়িয়ে দাও’, ‘আমার ভাই আবরার আর কত লাশ দরকার’, ‘শিক্ষা ছাত্রলীগ এক সাথে চলে না’ ইত্যাদি স্লোগান দেন।

উল্লেখ্য, গত রোববার দিবাগত রাত ২টার দিকে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ফেসবুকে লেখালেখির কারণে কারণে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদেরকে প্রায়ই এ ধরণের নির্যাতনের শিকার হতে হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

আবরার হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে বুয়েটঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারাদেশের সকল ক্যাম্পাসে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের ১৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন আবরারের পিতা। এরমধ্যে ১৩ জনকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ