ঢাবি ভর্তি পরীক্ষা: বৃষ্টিতে বিপাকে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের অধীনে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়েছে চলবে সাডে ১১টা পর্যন্ত। কিন্তু সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ায় পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের বিপাকে পড়তে দেখা গেছে। 

এছাড়া সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ার কারণে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশে নানা জটিলতায় পড়তে হয়েছে। সকাল সাড়ে ৯টার আগে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশ থাকলেও বৃষ্টি হওয়ার কারণে অনেককে দেরি ঢুকতে দেখা গেছে।

একইসঙ্গে বৃষ্টি হওয়ার কারণে বিপাকে পড়েছেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ার কারণে বৃষ্টিতে আশ্রয় নেয়ার মত ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা বৃষ্টিতে ভিজে শিক্ষার্থীদের জন্য পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে অপেক্ষা করছেন। অনাকাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি হওয়ায় অনেকে ছাতা নিয়ে আসেনি।

এ বিষয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর অভিভাবক সাবিনা ইয়াসমিন দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমি সকাল থেকে পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে দাঁড়িয়ে আছে। আমার মেয়ে গ ইউনিটে পরীক্ষা দিচ্ছে। আমি মিরসরাই থেকে এসেছে। সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ার কারণে বৃষ্টিতে ভিজে এখানে দাঁড়িয়ে আছি। বৃষ্টিতে কোথাও তাড়ানোর মত জায়গা না থাকায় এবং অনাকাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি হয় বৃষ্টিতে ভিজেই দাঁড়িয়ে আছি।

আরেক অভিভাবক সাদেক আলী বলেন, আমি নেত্রকোনা থেকে আজ সকালের ট্রেনে এসেছি। কোথায় যাওয়ার জায়গা না থাকার কারণে বৃষ্টিতে ভিজেই এখানে দাঁড়িয়ে আছি।

এ বছর ‘গ’ ইউনিটে ১২৫০টি আসনের বিপরীতে আবেদনকারী ছিল ২৯ হাজর ৫৮জন ভর্তিচ্ছু।ক্যাম্পাসের বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘুরে দেখা যায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া, পরীক্ষা চলাকালে ভ্রাম্যমান আদালত দায়িত্ব পালন করে।

সকাল সোয়া ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের দুটি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য। এসময় কেন্দ্র দুটির কয়েকজন পরীক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেন তিনি। পরিদর্শন শেষে উপাচার্য জানান, নতুন নিয়মে পরীক্ষা দিতে পেরে পরীক্ষার্থীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের উপাচার্য বলেন, ‘এ বছর মোট ৫৬টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা চলছে। আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং শিক্ষকরা পরিদর্শন করছেন। এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটেনি। এবার নতুন নিয়মে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে পরীক্ষার্থীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছে।'

এসময়, প্রশ্নফাঁসকারী ও জালিয়াতি চক্রের ফাঁদে পা না দিতে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানান উপাচার্য।

সরেজমিনে দেখা যায়, ছাত্রলীগ ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদসহ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া বিভিন্ন জেলার শিক্ষার্থীদের জেলা সংগঠন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের তথ্য সহায়তা দিয়েছে। এছাড়া ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের বিশ্রামের জন্য চেয়ার ও খাবার পানির ব্যবস্থা করেছে।

কিন্তু সকাল থেকে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হওয়ায় পুরো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস কাদায় সয়লাব হয়ে গেছে। এছাড়া, বহিরাগত যান নিয়ন্ত্রণ না করায় ক্যাম্পাসে মানুষ ও গাড়ির ভিড়ে তিল ঠাই অবস্থা বিদ্যমান।


প্রসঙ্গত, চারুকলা অনুষদভুক্ত ‘চ’-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা (সাধারণ জ্ঞান) আগামী শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

উক্ত ভর্তি পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদসহ ক্যাম্পাসের মোট ১৯টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। এবছর, চ ইউনিটে ১৩৫টি আসনের বিপরীতে আবেদনকারীর ১৬,০০১জন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষা দেবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান চারুকলা অনুষদের বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন।

এছাড়া, বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২০ সেপ্টেম্বর, কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২১ সেপ্টেম্বর, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২৭ সেপ্টেম্বর, চারুকলা অনুষদভুক্ত ‘চ’ ইউনিটের সাধারণ জ্ঞান পরীক্ষা ১৪ সেপ্টেম্বর ও অঙ্কন পরীক্ষা ২৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ