ঢাবি উপাচার্য ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ডীনের পদত্যাগ দাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের সময় পরীক্ষা ছাড়াই উপাচার্যের চিরকুটে ছাত্রলীগের ৩৪ নেতার ভর্তি হওয়া এবং সম্প্রতি বেগম রোকেয়া হলে ঘটা নিয়োগ বাণিজ্যের ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশন। এসব ঘটনা সুষ্ঠ তদন্ত পূর্বক দোষীদের শাস্তি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডীনের সম্পৃক্ততা উল্লেখ করে তাদেরও পদত্যাগ দাবি করেছেন সংগঠনটির নেতারা।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সংগঠনটির দপ্তর সম্পাদক আহমেদ জালাল সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

রোকেয়া হলের হল সংসদ ও প্রভোস্টের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন ঢাবি শাখার সভাপতি আবু রায়হান খান বলেন, যে শিক্ষক আমাদের নৈতিকতা শিক্ষা দেয়ার দায়িত্বে থাকেন তারাই যদি অনৈতিক কর্মকান্ড করেন তবে তাঁরা আমাদের কি নৈতিকতা শিক্ষা দিবেন? তিনি রোকেয়া হল প্রভোস্ট জিন্নাত হুদাসহ হল সংসদের পদত্যাগ দাবি করেন।

ভর্তি পরীক্ষা ছাড়াই চিরকুটের মাধ্যমে ছাত্র ভর্তি হওয়ার ঘটনাকে স্বজন প্রীতি হিসেবে দেখছি এবং এ ঘটনাকে শিক্ষা ধ্বংসের মাধ্যমে জাতি ধ্বংস হওয়ার পথ সুগম হচ্ছে বলে মনে করেন সংগঠনটির এ নেতা।

সংগঠনটির ঢাবি শাখার সভাপতি আবু রায়হান খান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে চিরকুট ভিসি আখ্যা দিয়ে এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেন। একই সঙ্গে ভিসি ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডীনের পদত্যাগ দাবি করেন।

ছাত্র ফেডারেশন ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সালমান ফরাজী বলেন, গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে আমারা জানতে পেরেছি ভর্তি পরীক্ষা ছাড়াই ঢাবিতে ছাত্র ভর্তি করা হয়েছে। ছাত্র ফেডারেশন দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে প্রশাসন প্রহসনের ডাকসু নির্বাচন আয়োজন করেছিল।

‘ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনকে জয়ী করার লক্ষ্যে প্রশাসন কারচুপিপূর্ণ নির্বাচনের আয়োজন করেছিল তা ইতিমধ্যে এ ঘটনার দ্বারা আবারো প্রকাশিত হয়েছে’ বলেও উল্লেখ করেন এ নেতা।


মন্তব্য