মানবিকতা দেখালো অ্যাপোলো হাসপাতাল

মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতাল। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নিহত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর হাসপাতাল বিল মওকুপ করে দিয়েছে অ্যাপোলো কর্তৃপক্ষ। তিনদিনে ঢাবি শিক্ষার্থী রিফাত হোসাইনের বিল আসে ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা। এরমধ্যে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা মওকুপ করে দেয় হাসপাতাল। এবং বাকি ৫০ হাজার টাকা দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। রিফাতের পরিবারকে কোন টাকা পরিশোধ করতে হয়নি।

আজ রোববার বিকালে অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা যান ঢাবি শিক্ষার্থী রিফাত। তার বাসা গাজীপুরের টঙ্গীতে। গ্রামের বাড়ি ফরিদপুর। তিনি সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের অনাবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন।তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষণিকা বসে আসা-যাওয়া করতেন। 

এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরী। এ নিয়ে রোববার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন তিনি। লেখেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র রিফাতের মৃত্যুর সংবাদ শুনে আমি অ্যাপোলো হাসপাতালে যাই। সেখানে ডাকসুর সদস্য রাইসা নাসের সহ রিফাতের সহপাঠীরা ছিল।’

‘হাসপাতালে বিল আসে ২লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। আমি গিয়ে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী ভাই এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করি। অ্যাপোলো হাসপাতালের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলি। তারাও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেন। এর মধ্যে রাব্বানী ভাই জিয়া হলের জিএস শান্ত, এফ রহমান হলের জিএস রাহিম এবং শহীদুল্লাহ হলের দেলোয়ারকে পাঠান। এরমধ্যে ডাকসুর অন্যান্য সদস্যদের সাথে আমার কথা হয়।’

‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে দীর্ঘক্ষণ আলোচনার এক পর্যায়ে তারা ২লক্ষ বিশ হাজার টাকা মওকুফ করেন। আর ৫০ হাজার টাকার প্রয়োজনের বিষয়টি প্রক্টর স্যারকে অবহিত করি এবং স্যার আমাকে জানান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করবেন। তাই রিফাতের পরিবারকে কোন টাকা পরিশোধ করতে হয়নি।’

‘আর ক্ষণিকা বাসের শিক্ষার্থীরা যে টাকা উত্তোলন করে সেটা রিফাতের পরিবার নিকট হস্তান্তর করবে। আর কেউ রকেটে বা বিকাশে টাকা চাইলে পাঠাবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘রিফাত অ্যাপোলোতে ভর্তি হওয়ার আগে উত্তরার একটি হাসপাতালের আইসিউতে প্রায় ৪-৫ দিন ভর্তি ছিল। তাই কেউ অসুস্থ হলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে সচেতন হোন। চেষ্টা করবেন ঢাকা মেডিকেল অথবা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল থেকে ট্রিটমেন্ট করাতে। এইসব হাসপাতালের বারান্দায়ও অন্যান্য হাসপাতালের কেবিন থেকে ভালো চিকিৎসা হয়। সবাই রিফাতের জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ রিফাতকে জান্নাতবাসী করুক আমিন’।

এদিকে রাত ৯টার দিকে রিফাতের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে টঙ্গীতে। আগামীকাল ঈদের জামাতের পর ফরিদপুরে দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছে সহপাঠি মেহেদি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ