ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে জবি শিক্ষার্থীর ওপর হামলা

  © সংগৃহীত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ফার্মেসি বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী ও শুভসংঘ জবি শাখার সহ সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বনি ইয়ামিন রাফি, তার বাবা ও ভাইকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে।

গতকাল শনিবার বিকেলে ভোলার চরফ্যাশনের আমিনাবাদ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইউসুফের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চরফ্যাশনের আমিনাবাদ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে রাফির পরিবারের ইলেকট্রিক, প্লাস্টিক মালামাল ও ফ্লেক্সিলোডের দোকান আছে। শনিবার স্থানীয় ইউপি সদস্য ইউসুফের ভাতিজা মোশারফ একটি ফ্লেক্সি কার্ড চাইলে রাফি তাকে কার্ড দেন। পরে মোশারফ কার্ডটি ঘসে দিতে বলেন। দোকানে অন্যান্য ব্যস্ততার কারণে রাফি কার্ডটি ঘসে দিতে অস্বীকৃতি জানালে সে রাফিকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে টাকা না দিয়েই চলে যায়। পরে রাফি তার বাবাকে জানালে তার বাবা মোশারফের চাচা ইউসুফ মেম্বারকে জানালে কিছুক্ষণ পর মোশারফ দলবল নিয়ে দোকানে হাজির হয়।

‘আমার নামে কেন বিচার দিয়েছিস’-একথা বলে রাফিকে চেয়ার থেকে কলার ধরে বের করে বেধড়ক মারধর করে। এতে তার বাম হাত ভেঙে যায়। এর কিছুক্ষণ পর ফের ইউসুফ মেম্বার দলবল নিয়ে এসে তার বাবা ও ভাইকে মারধর করে এবং দোকান ভাঙচুর করে। এসময় দোকানের মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত করে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়। এসময় তার ছোট ভাই কায়েস ও ইসতিহাদ আহত হয়।

এ বিষয়ে বনি ইয়ামিন রাফি বলেন, আমাদের দোকান লুটপাট করেছে, আমার হাত ভেঙে দিয়েছে, বাবা ও ভাই মারাত্মকভাবে জখম হয়েছে। এতে আমাদের অনেক বড় একটা ক্ষতি হয়ে গেল। এ বিষয়ে আমি আমার বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরকে অভিহিত করে থানায় অভিযোগ দিয়েছি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে ইউসুফ মেম্বার বলেন, এমন একটা ঘটনা ঘটেছে। আমি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের নিয়ে এটার সমাধান করে দেব।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, আমাকে ভুক্তভোগী ছাত্রের বাবা ফোন করেছে। আমি সেখানকার প্রশাসনের সাথে কথা বলবো।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ