হাতজোড়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া (ভিডিও)

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যা মামলায় নতুন কিছু ঘটনা নতুন করে সামনে আসছে। সম্প্রতি সুশান্তের বাবা কে কে সিংহ রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে সুশান্তকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার এবং অর্থ লুট করার অভিযোগে এফআইআর করেছিলেন। এর পরে বিহার পুলিশ রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য মুম্বাই পৌঁছেছিল যেখানে তারা রিয়াকে পায়নি। এরপর থেকে রিয়াকে অনেক দিন মিডিয়ার সামনে দেখা যায়নি।

শুক্রবার রিয়া এফআইআর দায়েরের পর চাপে পড়ে মিডিয়ায় সামনে এসেছেন এবং নিজের একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। এই ভিডিওতে রিয়া হাতজোড় করে ন্যায়বিচারের জন্য আবেদন করছে।

কান্নায় ভেঙে পড়ে রিয়া বলেন, “আমি বিশ্বাস করি- আমি ন্যায়বিচার পাব, ইলেকট্রিক মিডিয়ায় আমার সম্পর্কে প্রচুর ভয়ঙ্কর কথা বলা হচ্ছে। ঈশ্বর এবং বিচার বিভাগের প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস আছে, সত্য সত্যই জয় লাভ করবে। সত্যমেব জয়তে।”

এদিকে বলিউড অভিনেত্রী টিম কঙ্গনার পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে, ১৪ জুন সুশান্তের আত্মহত্যার আগের রাতে অভিনেতার বাড়ির পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন বলিউডের এক বড় নামকরা ব্যক্তি। আরেকটি টুইটে দাবি করা হয়েছে, বলিউডের সবাই তার নাম জানলেও, কিছুতেই সেই নাম প্রকাশ্যে আনা হবে না।

সেসবের রেশ ধরেই নতুন টুইটে এক বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন কঙ্গনা। তিনি বলেন, আমাকেও যদি ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়, জানবেন যে আমি আত্মহত্যা করিনি। অভিনেতা সুশান্তের মৃত্যুর রেশ ধরে বলিউডে চাপান-উতোর চলছেই। একের পর এক রহস্যজনক তথ্যও বেরিয়ে আসছে।

কঙ্গনা টুইটারে লিখেছেন, সবাই তার নাম জানে। করণ জোহরের প্রিয় বন্ধু এবং পৃথিবীর সেরা মুখ্যমন্ত্রীর সেরা ছেলে, ভালোবেসে তাকে সবাই ‘বেবি পেঙ্গুইন’ বলেন… এবার যদি বাড়িতে আমাকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়, তাহলে জেনে রাখবেন যে, আমি আত্মহত্যা করিনি।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় প্রতিদিনই নতুন নতুন নাম উঠে আসছে। কেউ কেউ এ মৃত্যুর পেছনে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরের পুত্র আদিত্য ঠাকরের হাত দেখতে পাচ্ছেন। আদিত্য ঠাকরে মহারাষ্ট্রের পর্যটন ও পরিবেশ বিষয়ক মন্ত্রী।

জনপ্রিয় একটি সংবাদ মাধ্যম টুইটে দাবি করেছে সুশান্তের মৃত্যুর আগের দিন ১৩ জুন সুশান্তের বান্দ্রার বাসার পার্টিতে এই ‘মন্ত্রীপুত্র’ও উপস্থিত ছিলেন। টুইটে আরো দাবি করা হয়েছে, ওই পার্টিতে কেছু একটা নিয়ে ঝগড়া শুরু হয়েছিল এবং সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ