বিকেল হলেই চোরাই মোবাইলের বাজার বসে মিরপুরে

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি বা ছিনতাই হওয়া মোবাইলগুলোর একটা অংশ বিক্রি হয় মিরপুরে। বিকেলে মানুষের ভিড় বাড়লে ১১ নম্বরের লালমাইটা এলাকার সড়ক-ফুটপাত দখল করে চোরাই মোবাইলের পসরা সাজিয়ে বসে দোকানিরা। আর এসব দোকানে বেশি দামের মোবাইল অল্প দামে কিনতে এসে উটকো ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন অনেক মানুষ। হতে হচ্ছে প্রতারণার শিকার।

শনিবার বিকেলে চোরাই মোবাইল বিক্রি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এক দোকানদার বলেন, আমি এখানে বেশিদিন ধইরা দোকানদারি করি না। এখানে অনেক পুরাতন দোকানদার আছে। করোনা ভাইরাসের আগে এখানে অনেক দোকান বসতো, এখন কম বসে। এখন তেমন বেচা-কেনা নাই। কেনার থাইকা দেখতেই আসে বেশি মানুষ। এখানের সব মোবাইল চোরাই না। কিছু আছে পুরাতন, ভালো ব্রান্ডের মোবাইল। ভালো-খারাপ মিলায়া বিক্রি হয়।

পল্লবী থানার আওতাধীন পলাশ নগর এলাকার গেটের সামনে বসে চোরাই মোবাইলের মার্কেট। সেখানে কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আইএমইআই (ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইক্যুইপমেন্ট আইডেনটিটি) নম্বর বদলে দামি ব্র্যান্ডের মোবাইল অর্ধেক দামে বিক্রি হয় এসব বাজারে। আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনে তাদের রয়েছে নিজস্ব ইঞ্জিনিয়ার ও সফটওয়্যার। আইএমইআই বদলে ফেলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও মোবাইল চোরকে শনাক্ত করতে পারছে না।

এ বিষয়ে পল্লবী থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবদুল মাবুদ বলেন, চোরাই মোবাইলের বিষয়ে আমাদের অভিযান চলমান আছে। দ্রুত অভিযান পরিচালনা করবো। প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনবো। আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ