মারধরের ছবি তোলায় সাংবাদিকের ওপর হামলা

  © সংগৃহীত

রোগীর সন্তানকে মারধর করার ছবি তোলার সময় দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা চালিয়েছে রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালের আনসার সদস্যরা। এ সময় তাদেরকে বেঁধে রাখারও হুমকি দেওয়া হয়। ঘটনাস্থলে পুলিশের সদস্যরা থাকলেও ঘটনাটিকে দুঃখজনক বলে চলে যান তারা।

আজ শুক্রবার (৩ জুলাই) দুপুরে হাসপাতালের প্রধান ফটকের ভেতরে দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের ফটো সাংবাদিক জয়ীতা রায় ও দৈনিক দেশ রূপান্তরের ফটো সাংবাদিক রশীদ রুবেলের ওপর এই হামলার ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত আনসার সদস্যের নাম রফিকুল ইসলাম। তিনি ওই হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করেন। 

হামলার শিকার জয়ীতা রায় বলেন, আমার স্কুটি পার্কিং করে ক্যামেরা নিয়ে হাঁটতে হাঁটতে হাসপাতালের প্রধান ফটকের সামনে গেলে রোগী ও রোগীর স্বজনদের লম্বা লাইন দেখি। এদের ভেতরে ক্যান্সার আক্রান্ত এক মায়ের কোভিড-১৯ পরীক্ষার নমুনা দেওয়ার জন্য টিকিট নিতে লাইনে দাঁড়িয়েছিল এক যুবক। কিন্তু একজন আনসার সদস্য ভেতর থেকে বের হয়ে ঘোষণা দেন, আজকে আর নমুনা নেওয়া হবে না। কিন্তু ৪০ জনকে টিকিট দেওয়া হলেও ৩৪ জনের নমুনা নেওয়া হয়। এর প্রতিবাদ করেন ওই যুবক। এরপর আনসার সদস্যরা তাকে মারধর করে। টেনে হাসপাতালের ভেতরে নিয়ে যায়। এই ছবি তুলতে দেখে আনসার সদস্যরা আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে।

তিনি আরও বলেন, এ সময় আমি প্রতিবাদ করলে তারা আমাকে মারতে এগিয়ে আসে। আমি কিছুটা পিছিয়ে আসায় থাপ্পড় গায়ে লাগেনি। এই ঘটনা দূর থেকে দেখেন দেশ রূপান্তরের সহকর্মী রুবেল রশীদ ও ডেইলি স্টারের আনিসুর রহমান। সেখানে রোগীর স্বজনরাও আনসারদের খারাপ ব্যবহারের প্রতিবাদ করেন। তা শুনে আমাদের অন্যান্য সহকর্মীরা এগিয়ে আসেন। এরপর আনসার সদস্যরা সবাইকে বের করে দেয়। আমারাও গেটের বাইরে চলে আসি। কিন্তু রোগীর স্বজনদের সঙ্গে তারা খারাপ ব্যবহার করেই যাচ্ছিল।

মুগদা থানার এসআই আলতাফ হোসেন বলেন, মুগদা হাসপাতালে সাংবাদিকদের ওপর একটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে এ সংশ্লিষ্ট কোনও অভিযোগ থানায় আসেনি।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ