ভাড়ার জন্য সনদ-মালামাল ডাস্টবিনে, রিমান্ডে হোস্টেল তত্ত্বাবধায়ক

ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ  © সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের ছুটিতে তিন মাসের ভাড়া বাকি থাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ শিক্ষার্থীর শিক্ষাসনদ ও মালামাল ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়ার অভিযোগে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের আলিফ ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

আজ শুক্রবার (৩ জুলাই) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান তাকে একদিনের রিমান্ড দেন। কলাবাগান থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক শরীফ সাফায়েত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত বুধবার গভীর রাতে খোরশেদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর আজ শুক্রবার তাকে আদালতে হাজির করে তিনদিনের রিমান্ডর আবেদন করে। শুনানি শেষে বিচারক একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জানা যায়, বেসরকারি সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ৫০ শিক্ষার্থী রাজাবাজারে আলিফ নামের ওই ছাত্রাবাসে ভাড়া থাকতেন। এ জন্য প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে তিন বেলার থাকা-খাওয়ার খরচসহ মাসিক সাড়ে চার হাজার টাকা দিতে হতো। করোনা পরিস্থিতিতে গত মার্চে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হলে সব শিক্ষার্থী তাদের কক্ষে তালা লাগিয়ে বাড়িতে চলে যান।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানান, ছুটির মধ্যে আমাদের মালামাল ভাগাড়ে দেওয়া হয়েছে এমন খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার ছুটে এসে দেখি সত্যি সত্যি কিছুই নাই। কক্ষের সব মালামাল সিটি করপোরেশনের গাড়িতে দেওয়া হয়েছে বলে জানতে পারি।

ওই মেসে থাকা ঢাকা কলেজের ইসলামের ইতিহাসের চতূর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সজিব বলেন, একাডেমিক সার্টিফিকেট ছাড়াও আমার প্রেসিডেন্ট রোভার স্কাউট পদকের পরীক্ষার জন্য সংরক্ষিত লগ বইসহ সমস্ত ডকুমেন্ট ছিল। এখন আমি কী করব বুঝতে পারছি না।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ