২৪ ঘণ্টায় বিধবা ও স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার

  © সংগৃহীত

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে দুইটি ধর্ষণ ও একটি ধর্ষণচেষ্টার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরমধ্যে ভোলায় এক বিধবা নারীকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে গণধর্ষণ করেছে বখাটেরা। বরিশালের গৌরনদীতে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১০ বছর বয়সি এক স্কুলছাত্রী। অন্যদিকে কুমিল্লার মুরাদনগরে ধর্ষকদের হাত থেকে বাঁচতে চলন্ত অটোরিকশা থেকে ঝাঁপ দিয়ে রক্ষা পেয়েছেন এক কলেজছাত্রী।

ভোলা (দক্ষিণ) প্রতিনিধি জানান, বুধবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে এক বিধবাকে (৩৫) জোরপূর্বক ভোলার উপ-শহর বাংলাবাজার হালিমা খাতুন কলেজের পিছনে নিয়ে হাত-পা ও মুখ বেঁধে গণধর্ষণ করা হয়েছে। তিনি দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগরের বাসিন্দা ও একটি প্রাইভেট ক্লিনিকের কর্মী। এ ঘটনায় অটোচালক মো. গিয়াসউদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ ।

গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতা জানান, উপজেলার শরিকল ইউনিয়নের সাহেবেরচর চৌধুরী আবুল হাসেম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে (১০) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ তাত্ক্ষণিক হোসনাবাদ বাজারে অভিযান চালিয়ে দোকানদার হারুন খলিফাকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে। সে উপজেলার দক্ষিণ চাঁদশী গ্রামের শুক্কুর খলিফার ছেলে।

মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা জানান, বুধবার দুপুরে উপজেলার দারোরা বাজার থেকে সিএনজি করে স্থানীয় এক ছাত্রী কলেজে যাওয়ার পথে কৌশলে অটোরিকশায় উঠে পড়ে বখাটে ইসমাইল। পরে চলন্ত সিএনজিতে ঐ ছাত্রীকে নানাভাবে যৌন হয়রানি শুরু করে সে। এক পর্যায়ে সম্ভ্রমহানির চেষ্টা করলে নিজেকে বাঁচাতে ঐ ছাত্রী চলন্ত সিএনজি থেকে ঝাঁপ দেন। এসময় স্থানীয় লোকজন বখাটে ইসমাইল ও তার সহযোগী সিএনজি চালক মোবারক হোসেনকে আটক করে মুরাদনগর থানায় সোপর্দ করে।

ধর্ষণে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার হয়নি

বরিশাল অফিস জানায়, বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার আসামি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী এবং জেলা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক বনি আমিনকে চার দিনেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তাকে গ্রেফতারের দাবিতে বৃহস্পতিবার পুলিশ কমিশনার এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বরিশাল নারী শিশু নির্যাতন ও সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ কমিটি। এদিকে ধর্ষণে অভিযুক্ত বনি আমিনকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ