রাজধানীতে শিশুকে ধর্ষণকারী কলেজছাত্র হবিগঞ্জে গ্রেপ্তার

রাজধানীর সবুজবাগ-বাসাবো এলাকায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণে অভিযুক্ত কলেজছাত্র জুবায়ের মিয়াকে হবিগঞ্জের রাজনগর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে তাকে র‌্যাব-৩ এর একটি দল গ্রেপ্তার করে। জুবায়ের মিয়া (২৫) লাখাই উপজেলার মানপুর গ্রামের তাহের মিয়ার ছেলে।

র‌্যাব-৩ সূত্র জানায়, জুবায়ের তার তিন ভাইসহ সবুজবাগ-বাসাবো এলাকায় সাবলেট বাসায় ভাড়া থাকতো। সেখানে সিদ্ধেশ্বরী এলাকার একটি ল’ কলেজে এলএলবি পড়ছে জুবায়ের। গত ১৬ জানুয়ারি পাশের রুমের শাহজাহানপুর রেলওয়ে বিভাগের কর্মচারীর শিশু কন্যাকে ফুসলিয়ে নিজের রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণের বিষয়ে শিশুটি কিছু বলেনি। তবে ঘটনার তিন দিন পর শিশুটির মা বিষয়টি টের পান। তিনি শিশুটিকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে সে ঘটনার কথা স্বীকার করে। পরে মানসম্মানের ভয়ে কাউকে বিষয়টি জানায়নি শিশুটির মা-বাবা।

তবে গত ২২ জানুয়ারি রাতে সবুজবাগ থানায় শিশুটির বাবা মামলা করেন। এছাড়া শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়। অপরদিকে মামলা দায়েরের খবর পেয়ে হবিগঞ্জে পালিয়ে যায় জুবায়ের।

পরে র‌্যাব-৩ এর কাছে অভিযোগ করে শিশুটির পরিবার। এর পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাব-৩ মোবাইল ট্র্যাকিংয়ে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে রাজনগর এলাকায় অভিযান শুরু করে। র‌্যাব-৩ এর এএসপি আবু জাফর মো. রহমত উল্ল্যাহ ও সহকারী পরিচালক শাখাওয়াত হোসেনের নেতৃত্বে একটি টিম অভিযান চালায়।

রাত সাড়ে ১১টার দিকে একটি বাসা থেকে জুবায়েরকে আটক করা হয়। এ তথ্য গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন র‌্যাব-৩ এর এএসপি আবু জাফর মো. রহমত উল্ল্যাহ। তিনি বলেন, ‘অভিযানকালে স্থানীয়রা ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে সহযোগিতা করে। যে কারণে তাকে সহজেই গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাব।’

রাজধানীর সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম গণমাধ্যমকে জানান, প্রথমে শিশুটির পরিবার মানসম্মানের ভয়ে কাউকে বিষয়টি বলেননি। পরে গত বুধবার রাতে মামলা করেন। এরপর আমরা জুবায়েরকে গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। কিন্তু হবিগঞ্জে পালিয়ে যাওয়ায় গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। র‌্যাব-৩ তাকে গ্রেপ্তার করেছে বলে তিনি জানান।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ